রাষ্ট্রপতির সাথে সংলাপে কল্যাণ পার্টি

বার্তা পরিবেশকঃ
১৩ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে কল্যাণ পার্টির ছয় সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব কক্সবাজারের সন্তান আবদুল আউয়াল মামুন। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে দলটি বলেছে, এর আগে সার্চ কমিটির মাধ্যমে স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করা যায়নি। ইসি গঠনে এখনো আইন করার মতো যথেষ্ট সময় ও সুযোগ রয়েছে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন চায় দলটি। নিবন্ধিত সব দলের প্রতিনিধি, সামরিক বাহিনীর প্রতিনিধিসহ সমাজের সব স্তরের পেশাজীবীদের সম্মিলনে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের প্রস্তাব রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরে কল্যাণ পার্টি। তারা বলেছে, এই সরকারের নাম ‘আপৎকালীন সরকার’, ‘জরুরি সরকার’, এমনকি ‘দেশরক্ষা সরকার’ হিসেবেও উল্লেখ করা যেতে পারে। গত বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) কল্যাণ পার্টির মহাসচিব আবদুল আউয়াল মামুনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দল রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সংলাপে বসেন।
সংলাপে তারা নির্বাচনী আইন প্রণয়ন করার প্রস্তাব দেন। সম্ভব না হলে অধ্যাদেশ জারির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রস্তাব করেন। তারা সংবিধানের ১২৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনকে নির্বাহী বিভাগের সহযোগিতা এবং নির্বাচন কমিশন ও সরকারের জবাবদিহি নিশ্চিত করার কথা বলেন।
সংলাপ শেষে আবদুল আউয়াল মামুন সাংবাদিকদের বলেন, সার্চ কমিটির জন্য আমরা তিনজনের নাম দিয়েছি। তবে সেই নামগুলো এখনই প্রকাশ করতে চাই না।
সংলাপ শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, রাষ্ট্রপতি প্রতিনিধি দলকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, গণতন্ত্রে নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া। নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
রাষ্ট্রপ্রধান বলেন, একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত ও সুপারিশ ফলপ্রসূ ভূমিকা রাখবে।
রাষ্ট্রপতি বলেন, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য রাজনীতিতে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে এবং এ ব্যাপারে রাজনৈতিক দলগুলোকেই উদ্যোগী হতে হবে। এছাড়া ত্যাগী ও সাধারণ মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হতে পারে সে জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।
রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্র রিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোন মন্তব্য বা বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোন ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য বা বক্তব্য সংশোধনের ক্ষমতা রাখেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.