জামাল ড্রাইভার হত্যাকান্ড: আসামীরা ঘুরছে প্রকাশ্যে

বিশেষ প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের বাস-টার্মিনাল এলাকার কামাল উদ্দিন প্রকাশ জামাল ড্রাইভার হত্যাকান্ডে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ রহস্যজনক আচরন করছে বলে অভিযোগ করেছে হত্যার শিকার জামালের পরিবার। হতাকান্ডের প্রায় ২৪ দিন পার হলেও আসামীরা প্রকাশ্যে থাকলেও তাদের রহস্যজনক কারনে পুলিশ গ্রেপ্তার করছে না । নিহত জামালের পরিবারের সুত্রে জানা গেছে, গত ১৫ ফেব্রুয়ারী নিজ বাসা থেকে ডেকে নিয়ে জামালকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এরপর হত্যাকান্ডের শিকার জামালের স্ত্রী নুর নাহার বেগম বাদী হয়ে ১৭ ফেব্রুয়ারী কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় চারজনকে আসামী করা হয়। মামলার প্রধান আসামী রফিকুল ইসলাম বাবুলকে পুলিশ গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী ও মোহাম্মদিয়া গেস্ট হাউজের মালিক মো. ইসহাকের ছেলে মো. হাবিব উল্লাহ প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করলেও পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারে নানা অজুহাত দেখাচ্ছে পুলিশ। পুলিশের এমন সুযোগে মামলা প্রত্যাহারে বাদী ও জামালের পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে আসামীরা। ওই মামলার বাকী আসামীরা হলো, ইউনূছ ড্রাইভার (৩০) ও ছৈয়দু ড্রাইভার (৫০)।

তবে গ্রেফতারকৃত আসামী বাবুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে জানিয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান, আদালত এখনো রিমান্ড মঞ্জুর করেনি। যদি আদালত আদেশ দেন তাহলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত তথ্য নিয়ে বাকীদের গ্রেফতারে অভিযান চালাবে পুলিশ।

উল্লেখ্য, পূর্ব শক্রতার জের ধরে গত ১৫ ফেব্রুয়ারী রাতে নিজ বাসা থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় জামালকে। এরপর ১৭ ফেব্রুয়ারী তার স্ত্রী নুর নাহার বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় চারজনকে আসামী করে মামলা দয়ের করেন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.