চকরিয়া পৌর শহরে মার্কেট দখলে -গুলিবর্ষণ, অস্ত্র উদ্ধারে প্রশাসনের নীরবতা।

 

মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেল,  (চকরিয়া) প্রতিনিধিঃ

চকরিয়া পৌরশহরের চিরিঙ্গা সদরে মার্কেট দখলে হামলা ভাংচুর ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ২৬/৭/১৭(বুধবার)রাত ৩:ঘটিকার সময়। এসময় মার্কেটের ব্যবসায়ী ও আশপাশ এলাকার লোকজনের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বুধবার ভোররাতে পৌরশহরের আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্স নামের একটি মার্কেটের দোকান দখলে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গতকাল বিকালে মার্কেটের  মালিক আনোয়ার হোসেনের ছোট ভাই জমির হোছাইন বাদি হয়ে চকরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগটিতে মার্কেটের পেছনের গ্রাম সমশেরপাড়ার শাহআলম, আবদুল গফুর, আজিজ, আইয়ুবসহ সাতজনকে বিবাদি করা হয়েছে। আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্স নামের মার্কেটের পেছনে অভিযুক্তদের একতা শপিং নামের অপর একটি মার্কেট রয়েছে। ওই মার্কেটটির গলিপথ তৈরী করতে অভিযুক্তরা আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্সের একটি দোকান দখল করে তা ভেঙ্গে দেয়ার জন্য অপচেষ্ঠা চালিয়ে আসছে।

সর্বশেষ বুধবার ভোররাতে ভাড়াটে লোকজন নিয়ে অভিযুক্তরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্সের একটি দোকান ভেঙ্গে ফেলে। ঘটনার খবর পেয়ে মার্কেট মালিক পক্ষ বাঁধা দিতে এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা ৪ রাউন্ড ফাঁকা গুলিববর্ষণ করে বলে অভিযোগটিতে দাবি করেন বাদি।

এবিষয়ে কাউন্সিলর রেজাউল করিম বলেন,শাহা আলম পিতাঃনুর আহমদ,আইয়ুব পিতাঃসাহাব উদ্দিন,মনিয়া চোরা, আব্দুল গফুর পিতাঃ আবুল হাসেমসহ সংঙ্গীয়রা দা,বন্ধুক ব্যাবহার করে মানুষকে জিন্মি করে মানুষের মোবাইল, টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং বিভিন্ন পাঁয়তারা করে নিরীহ মানুষের অত্যাচার করে প্রতিনিয়ত। বর্তমানে তাদের অভৈধ অস্ত্রের ঝনঝনানিতে সাধারণ মানুষকে জিন্মিদশায় কায়দাকরে ধান্ধাবাজিতে ব্যাস্থ,বুধবার ঘটনার দিবাগত রাত তিনটার সময় তাদের ব্যাবহৃত বন্দুক দিয়ে ৪রাউন্ড গুলি ছুড়ে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,ঘটনার সময়কালে থানা পুলিশকে খবর দেওয়ার প্রায় দেড়ঘন্টা বিলম্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।তানিয়ে জনমনে বিরূপ প্রতিক্রীয়া সৃষ্টি হয়।ঘটনার দুদিন পার হলে ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে অবৈধ অস্ত্রের  বিরুদ্ধে তেমন কোন অভিযান উপলব্ধি করা যাইনি।এখনো অক্ষত রয়েছে অবৈধ অস্ত্র,অতিদ্রুত এই অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার না হলে যেকোন মুহুর্তে মার্ডার হওয়ার  আশংঙ্খা প্রকাশ করেন স্থানীয় জনসাধারণ।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন,ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশের ঘটনাস্থলে পৌছে। ওইসময় পুলিশদল মার্কেটের দারোয়ানসহ আশপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন। তবে ওইসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। তিনি বলেন, থানায় দায়ের করা অভিযোগটি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ হবে বলে জানান।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.