রিয়ালকে ‘গার্ড অব অনার’ দেবে বার্সা?

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ বার্সেলোনা শেষবার রিয়াল মাদ্রিদকে গার্ড অব অনার দিয়েছে সেই ২০০৮ সালে। লা লিগায় দ্বিতীয় এল ক্লাসিকোর আগেই লিগ শিরোপা জেতায় লস ব্লাঙ্কোসদের দাঁড়িয়ে সম্মান জানিয়েছিল ফ্রাঙ্ক রাইকার্ডের বার্সা। নয় বছর পর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের কাছ থেকে গার্ড অব অনার আদায়ের আরেকটি সুযোগ এসেছে রিয়ালের সামনে। কিন্তু প্রশ্ন থাকছে, বার্সেলোনা কী রাজি হবে রিয়ালকে দাঁড়িয়ে সম্মান জানাতে?

গত মঙ্গলবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ২-১ গোলে হারিয়ে উয়েফা সুপার কাপ জিতেছে রিয়াল। রেড ডেভিলদের বিপক্ষে শিরোপা জিতে ইউরোপ সেরার খেতাবটাও নিজেদের দখলে নিয়েছে ব্লাঙ্কোসরা। আগামী শনিবার ন্যু ক্যাম্পে স্প্যানিশ সুপার কাপে বার্সার মুখোমুখি হতে যাচ্ছে মাদ্রিদের জায়ান্টরা। আর ইউরোপ সেরা হিসেবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের থেকে গার্ড অব অনার আশা করতেই পারে রিয়াল।

তবে বার্সাকে যে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের গার্ড অব অনার জানাতে বাধ্য থাকতে হবে এমনটাও নয়। ২০১৫ সালে ইউরোপ সেরা হয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপে অ্যাটলেটিকোর কাছ থেকে দাঁড়িয়ে সম্মান পায়নি কাতালান দলটি। ২০১৬ সালে রিয়ালকে সম্মান জানায়নি রিয়াল সোসিয়েদাদও।

অবশ্য এর উল্টো নজিরও আছে। ২০১০ ও ২০১২ সালে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে গার্ড অব অনার দিয়েছিল স্পোর্টিং গিজন এবং রায়ো ভায়েকানো। ২০০৪ সালে ভিয়ারিয়ালকে গার্ড অব অনার জানিয়েছিল ভ্যালেন্সিয়া।

রিয়াল-বার্সার দুই দলের দ্বৈরথের ইতিহাসটা শতবর্ষব্যাপী। আভিজাত্য বনাম শাসিতের লড়াইয়ে এক দল আরেক দলকে ছাড় দিতে রাজী নয় বিন্দু পরিমাণ। বার্সাও রাজি নয় রিয়াল মাদ্রিদকে সম্মান জানাতে। স্প্যানিশ গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে এমনই। যেহেতু লিগের বাইরে গার্ড অব অনার জানানোটা বাধ্যতামূলক নয়, তাই কাতালানরাও হয়ত গার্ড অব অনার জানাবে না বার্নাব্যুর দলটিকে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.