যশোরে গৃহবধূ গুলিবিদ্ধ : স্বামী সুজন পলাতক

ইয়ানুর রহমান : যশোরে গৃহবধূ গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর পালিয়ে গেছেন তার স্বামী তরিকুজ্জামান সুজন। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গৃহবধূর ভাসুর কাজলের স্ত্রী লাভলী ও ছেলে ছাহিমকে পুলিশ হেফাজতে নিয়েছে ।

গৃহবধূ শান্তা বেগম (৩০) বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে শহরের পুরাতন কসবা ঘোষপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে গুলিবিদ্ধ হন। তিনি শহরের পালবাড়ি এলাকার তরিকুজ্জামান সুজনের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে তার আমেরিকা প্রবাসী স্বামী অবৈধ অস্ত্র দিয়ে গুলি করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শান্তা ইসলাম ও তার স্বামী তারেকুজ্জামান সুজন শহরের পুরাতন কসবা ঘোষপাড়ার একটি বাড়িতে থাকেন। বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ওই গৃহবধূ গুলিবিদ্ধ হন। তার ডান উরুতে গুলি লেগেছে। ঘটনার পর তাকে উদ্ধার করে সকাল সোয়া ৭টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সকাল সাড়ে ১১টায় তাকে খুলনার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, শান্তা ইসলামের স্বামীই তাকে গুলি করেছেন। অবৈধ অস্ত্র দিয়ে তাকে গুলি করা হয়েছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে তাকে গুলি করা হয়েছে বলে তারা প্রথমিক তদন্তে জানতে পেরেছেন।

তিনি আরো বলেন, শান্তা ইসলামের স্বামী পলাতক রয়েছে। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে।

যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের অর্থপেডিক বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একেএম জাহাঙ্গীর আলম জানান, তার ডান পায়ের উরুতে গুলি লেগেছে। মাংশের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হওয়ায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। সে কারণে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে রেফার্ড করা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.