আসছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিমান ‘স্ট্রাটোলঞ্চ’

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ বিশাল আকারের ‘স্ট্রাটোলঞ্চ’ বিমানটির নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পথে। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া মরুভূমিতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই বিমানটির নির্মাণকাজ চলছে।

বুধবার পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা বিমানটির ডানা ‘হাওয়ার্ড হিউস স্পুস গুজ’ এর চেয়ে অনেক প্রশস্ত। খবর এনডিটিভির।

‘স্ট্রাটোলঞ্চ’ নামে পরিচিত বিমানটির পাখা ৩৮৫ ফুট লম্বা। এটা একটি ফুটবল মাঠের চেয়েও দীর্ঘ! আর উচ্চতা ৫০ ফুট। তেল ছাড়া এর ওজন ৫ লাখ পাউন্ড। কিন্তু এটা আড়াই লাখ পাউন্ড তেল বহন করতে পারবে। সব মিলিয়ে এটা ১.৩ মিলিয়ন পাউন্ডের মতো ভার বহন করতে পারবে।

এটা এত বড় বিমান যে এর ২৮টি চাকা এবং ছয়টি ৭৪৭ জেট ইঞ্জিন আছে। এটা ভালো করে দেখতে হলে দূর থেকে দেখতে হবে যেমনটা পাহাড় দেখতে হয়।

কোন কাজে ব্যবহার হবে ‘স্ট্রাটোলঞ্চ’?

মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সিয়াটল সিহকস এর মালিক পল এলেনের এ নিয়ে বিশাল পরিকল্পনা আছে। তার সঙ্গে আছে ভার্জিন গ্রুপের রিচার্ড ব্রানসনদের মতো ধনকুবের।

উল্লেখ্য এই বিশালদেহী বিমান যাত্রী বহন করবে না। রকেট বহনের কাজে ব্যবহৃত হবে। যত বড় বিমান তত বড় রকেট বহন করার সুযোগ রয়েছে। বিমানটির পেটে করে রকেট বহন করে নিয়ে যাওয়া হবে অন্তত ৩৫ হাজার ফুট ওপরে। এরপর সেখান থেকে রকেট নিক্ষেপ করা হবে।

এই বিশালদেহী বিমানের মাধ্যমে মহাশূন্যে ছোটখাটো উপগ্রহ উৎক্ষেপণের খরচ কমিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন পল এলেন ও রিচার্ড ব্রানসনরা। এর মাধ্যমে ইন্টারনেটের দুনিয়া আরো গতিময়, আরো সাশ্রয়ী হবে বলে জানান তারা।

পল এলেন বলেন, ‘৩০ বছর আগে ব্যক্তিগত কম্পিউটার বা পিসি হাজারো মানুষের জন্য সম্ভাবনার দরজা খুলে দেয়। ২০ বছর আগে ওয়েবের আবিষ্কার ও স্মার্ট ফোনের ব্যবহার অপার সম্ভাবনার দরজা খুলে দেয়। ভূগোলের সীমানা তুলে দিয়ে বাণিজ্যের নতুন নতুন দিগন্ত উন্মোচন করে এসব প্রযুক্তি।’

‘স্ট্রাটোলঞ্চ’ নামে বিশালদেহী বিমানটি পরীক্ষামূলকভাবে উড্ডয়ন হবে ২০১৯ সালের দিকে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.