ঝিনাইদহে গৃহবধুকে কুপিয়ে যখমের রহস্য শ্লীলতাহানীতে ব্যর্থ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহে শ্লীলতাহানীতে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধুকে কুপিয়ে যখম করেছে এক বখাটে। এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন নির্যাতিত ওই গৃহবধু। এর পরেও থেমে নেই বখাটে ওই যুবক। নানা রকম হুমকি ধামকি দিচ্ছে বাদী ও তার পরিবারকে। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে বাদী ও তার পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৯ ডিসেম্বর ঝিনাইদহ সদর উপজেলার দক্ষিণ নারায়নপুর গ্রামে। রোববার রাতে শিউলি বাদি হয়ে ঝিনাইদহ থানায় মামলা করেছে।

 

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, দক্ষিণ নারায়নপুর গ্রামের শিউলি বেগমকে ঘোড়শাল জামতলা পাড়ার লুৎফর মন্ডলের ছেলে মখলেচ মন্ডল বিভিন্ন সময় উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৯ ডিসেম্বর দুপুরে শিউলি তার পিতার ঘোড়শালা গ্রামের মাঠে আবাদকৃত মরিচের জমিতে মরিচ তুলতে যায়। এ সময় ওই বখাটে যুবক শিউলিকে একা পেয়ে তাকে জোর পূর্বক শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে, ব্যর্থ হয়ে বখাটে শিউলিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক যখম করে এবং তার গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়।

 

তখন শিউলির আত্ম চিৎকারে লোকজন ছুটে আসলে লম্পট মখলেচ পালিয়ে যায়। সে সময় স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘোড়শাল গ্রামের জনৈক মাতব্বর তোফাজ্জেল মন্ডল নির্যাতিত গৃহবধু ও তার পরিবারকে মামলা না করার জন্য হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। পরে গোপনে পালিয়ে এসে রোববার রাতে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

 

ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। এটি এজাহার হিসেবে গন্য করে দোষি ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comments are closed.