কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার-২৩জন

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত ২৩ জনকে আটক করেছে। গত ০৯/১২/২০১৯ ইং তারিখ সকাল হতে ১০/১২/২০১৯ ইং তারিখ সকাল পর্যন্ত অফিসার ইনচার্জ জনাব সৈয়দ আবু মোঃ শাহজাহান কবির, পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স) মোহাম্মদ মহিবুল আলম, পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন্স) জনাব মোহাম্মদ ইয়াছিন, এসআই মোস্তাক আহমদ, এসআই প্রদীপ চন্দ্র দে, এসআই কাঞ্চন দাশ, এসআই আরফাতুল আলম, এসআই সাইফুল ইসলাম-২, এসআই রাজিব চন্দ্র পোদ্দার, এএসআই বিলাস সরকার, এএসআই জয়, এএসআই আবুল কাশেম, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর, সঙ্গীয় ফোর্স এবং ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান খান সহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ২৩ জন আসামীকে গ্রেফতার করেন কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।

নিয়মিত মামলা সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন

কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-৩৬(১২)১৯, ধারা-মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) এর ১০(ক) সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামী
১। আমির আলী প্রঃ আমির, পিতা-মৃত নাজির আহম্মদ,সাং- লাইট হাউজ ১২ নং ওয়ার্ড, আমির আলীর বাড়ী, থানা ও জেলা- কক্সবাজার।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-৩৭(১২)১৯, ধারা-মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) এর ১০(ক) সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীঃ
২। মোঃ হাবিবুল্লাহ, পিতা- মৃত নুর মোহাম্মদ, সাং-উত্তর নুনিয়ারছড়া, (বড় কবর স্থানের পাশের্^),থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৩। শওকত আলম,পিতা-শাহআলম, সাং- উত্তর নুনিয়ারছড়া, (বড় কবর স্থানের পাশের্^),থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৪। আরিফুল ইসলাম, পিতা- মোঃ শহিদুল্লাহ, সাং- উত্তর নুনিয়ারছড়া, (নোলক কোম্পানীর ডকের সামনে) ২ নং ওয়ার্ড, কক্সবাজার পৌসভা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার নন-এফআইআর নং ৪৭৯ তাং- ১০(১২)১৯খ্রিঃ ধারা-পুলিশ আইনের ৩৪(৬) সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামী-
৫। মোঃ রফিক, পিতা- আব্দুল হামিদ,সাং- লাইটহাউজ পাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
ক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-৩৯(১২)১৯, ধারা-৩৯৯/৪০২ দঃবিঃ সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীঃ
৬। মোঃ হাশেম, পিতা- মোঃ আলমগীর,সাং- সমিতিপাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৭। মোঃ রুবেল,পিতা- মোঃ শুক্কুর,সাং- লাইটহাউজ পাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৮। বাদশা মিয়া, পিতা-মৃত মুক্তার হোসেন, সাং- নতুন বাজার কুল্যাল পাড়া, থানা- মহেশখালী,কক্সবাজার।
৯। কায়সার ফারুক প্রঃ পুতু, পিতা-মৃত নুরুল ইসলাম, সাং-গাড়ির মাঠ, ঝাউতলা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১০। মোঃ রানা সোহেল, প্রঃ রানা, পিতা- মৃত মোস্তাক,সাং-খাজামঞ্জিল, বৈদ্যঘোনা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১১। আঃ আহাদ বাপ্পি,পিতা- আঃ ওহিদ, সাং- পশ্চিম বিজয়পুর, থানা-শাহরস্তি, জেলা- চাঁদপুর।
১২। নাইমুল হাসান, নাঈম, পিতা- মোঃ আবু য়ৈব, সাং- ঝাউতলা, গাড়ির মাঠ, থানা ও জেলা- কক্সবাজার।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-৩৮(১২)১৯ ধারা-মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) এর ১০(ক) সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীঃ
১৩। ইমরান, পিতা-মৃত শফি উল্লাহ, সাং- নতুন পাড়া, শাপলাপুর, থানা-টেকনাফ,জেলা-কক্সবাজার। বর্তমানে- লাইট হাউজ, থানা ও জেলা- কক্সবাজার।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার মামলা নং-০৭(১২)১৯ ধারা-৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩০৭/৩৭৯/৩৪ দঃবিঃ সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীঃ
১৪। মোঃ জাফর প্রঃ জাফর আহম্দ,পিতা- মৃত আব্দুল জব্বার, সাং- পূর্ব কলাতলী, ঝিলংজা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

পরোয়ানা সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন

১। হেলাল, পিতা- মৃত আব্দু সাত্তার, মালিক শালীক রেস্তোরা কলাতলী, সাং- মধ্যম কলাতলী, ১২ নং ওয়ার্ড, পৌর, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
২। নাছির উদ্দিন, পিতা- মৃত আব্দু সাত্তার, মালিক শালীক রেস্তোরা কলাতলী, সাং- মধ্যম কলাতলী, ১২ নং ওয়ার্ড, পৌর, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৩। বেলাল উদ্দিন, পিতা- মৌলভী কলিম প্রঃ ছলিম, সাং-দক্ষিন মাইজপাড়া, ঈদগাঁও, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৪। আব্দুল শুক্কুর, পিতা- মোঃ গুড়া মিয়া, সাং- কলাতলী (দক্ষিন আদর্শ গ্রাম) সেলিমের বাড়ী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৫। আব্দুল কাশেম,পিতা- মৃত মকবুল আহাম্মদ, সাং- মধ্যম মাইজপাড়া, ঈদগাঁও, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৬। কমলা বেগম, স্বামী- মোঃ মনসুর আলম, সাং- খুরুলিয়া কুনাপাড়া, (আব্দুল মজিদ এর বাড়ী), থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৭। মনছুর আলম, প্রঃ আলম, পিতা- মৃত আব্দুল মজিদ, সাং- কোনাপাড়া, খুরুলিয়া, ঝিলংজা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৮। সৈয়দ নুর(৩০), পিতা-ছৈয়দুল হক, সাং- ননা মিয়ার পাড়া, ভারুয়াখালী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৯। শাহাব উদ্দিন, পিতা- বাহাদুর, সাং-নতুন বাহারছড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব সৈয়দ আবু মোঃ শাহজাহান কবির তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাহাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আম জনতা ও পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের লক্ষ্যে মামলায় অভিযুক্ত ও চিহিৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Comments are closed.