আজ ভারতের লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল উত্থাপন হচ্ছে

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ  ভারতের লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল উত্থাপন হচ্ছে সোমবার (৯ ডিসেম্বর)। বিকেলে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিলটি উত্থাপন করবেন। বিলটি পাস হলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তানসহ প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে আসা অমুসলিমদের ভারতের নাগরিকত্ব পাওয়া আরো সহজ হবে।

বিলটিকে অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে শুরু থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছে কংগ্রেসসহ অন্যান্য বিরোধী দল। বিলটি বাতিলের দাবিতে এরইমধ্যে আসাম, পশ্চিমবঙ্গ, কর্ণাটকসহ বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ হয়েছে।

ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের নাগরিক সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে রোববার মশাল মিছিল করেন উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের সাধারণ মানুষ। তাদের অভিযোগ সাম্প্রদায়িক বিভাজন তৈরির জন্য সরকার নাগরিক সংশোধনী বিলকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের পাঁয়তারা করছে।

তারা বলেন, আসামসহ পুরো ভারতের নাগরিকদের রাজনীতির লক্ষ্যবস্তু বানাতে চায় সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের সাম্প্রদায়িক এজেন্ডা বাস্তবায়ন হতে দেব না আমরা। স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই, আপনারা আসামসহ উত্তরপূর্বাঞ্চলে নাগরিক সংশোধনী বিল বাস্তবায়নের চেষ্টা করবেন না। সরকারের সিদ্ধান্ত দেশবিরোধী। আসামের নাগরিক আইনবিরোধী। শুধু সংবিধান নয়, সাম্প্রদায়িক সিদ্ধান্ত নিচ্ছে তারা।

বিক্ষোভ হয়েছে বেঙ্গালুরুর কর্ণাটক, রাজধানী নয়াদিল্লিসহ বিভিন্ন শহরে। গানে গানে স্লোগানে স্লোগানে নাগরিক সংশোধনী বিল বাতিলের দাবি জানান বিক্ষোভকারীরা। তারা বলেন, এ বিল আমাদের সংবিধান এবং রাষ্ট্রীয় ধর্মনিরপেক্ষতা পরিপন্থী। তারা সরাসরি বলছে, মুসলিম ছাড়া সব অভিবাসীদের ভারতে স্বাগতম। এটা আমাদের জাতীয় বৈশিষ্টের পরিপন্থী।

সোমবার বিলটি পাস হলে দেশটির নাগরিকত্ব পাবেন ৫ বছর ধরে ভারতে বসবাসকারী পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের অমুসলিমরা। বিল বাতিলের দাবিতে ইতোমধ্যে ১০ ডিসেম্বর ১১ ঘণ্টার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে নর্থইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশন। অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে বিলের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে বিরোধী শিবিরগুলোও।

Comments are closed.