শীতে জলপাই তেলে সারাদিন

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ শীতে আপনাকে একটু বেশি সতর্ক থাকতে হয়। কারণ এই শীত আপনার শরীরের আর্দ্রতা শুষে নেয়। তাই ঘটে যত বিপত্তি! সারা বছর যত অযত্নই করুন না কেন, শীত আপনাকে কাবু করবেই। এ জন্য শীতে বাড়তি যত্নের প্রয়োজন পড়ে নারী-পুরুষ উভয়ের।

শরীর সুস্থ ও ফিট রাখতে এবং হাড়ের ক্ষয় রোধ করতে চাইলে জলপাই তেল-এর বিকল্প নেই। জলপাই তেল একটি জনপ্রিয় সালাদ তেল, যা এখনো ঐতিহ্যবাহী নানান ধরনের খাবার তৈরিতে বিশেষ উপায়ে ব্যবহার করা হয়।

তবে খাওয়া ছাড়াও এই তেলের এমন কিছু গুণ আছে, যা আপনার ত্বক ও রূপের বিশেষ যত্ন নিতে সক্ষম। এখানে জলপাই তেলের অসাধারণ কিছু গুণের ব্যবহার দেয়া হয়েছে-

যদি আপনার দরজার কব্জাতে বাজে আওয়াজ তৈরি করে অথবা কাঠের দরজা খোলা কঠিন হয়, তাহলে কিছু জলপাই তেল সেখানে ঢেলে দিন এবং কিছুক্ষণ পরেই তার পার্থক্য বুঝতে পারবেন।

ওটমিল এবং সামান্য ক্রিমের সাথে একটু জলপাই তেল মিশিয়ে মুখের ফেস স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

বাড়ি ঘরে ব্যবহৃত লোহার জিনিসপত্র বা গ্রিলের মধ্যে মরিচা আর আদ্রতার হাত থেকে রক্ষা করতে জলপাই তেলের ভূমিকা অপরিসীম।

ঐতিহ্যগতভাবে শিশুদের জন্য সেরা ম্যাসাজ তেল হিসেবে অলিভ অয়েলকেই বিবেচিত করা হয়। বাড়ন্ত শিশুদের জন্য অলিভ অয়েল এক বিশেষ কাযকরী উপদান। এটি কৃত্রিম খনিজ তেল যা দ্বারা পেট্রোলিয়াম তৈরী করা হয়, শরীর সুস্থ রাখার জন্য এই প্রাকৃতিক তেল বেশ উপকারী।

যদি বাড়িতে কোন সেভিং ক্রীম না থাকে তবে সামান্য অলিভ ওয়েল ব্যবহার করেও আপনি মসৃণ আর কোমল ত্বক পেতে পারেন।

১ কাপ অলিভ ওয়েল আর ১ কাপ ভিনেগার মিশিয়ে বোতলে ভরে স্প্রে করে আপনার ঘরের আসবাবপত্র পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করতে পারেন।

আপনার হাত কনুই আর ত্বক কোমল আর মসৃণ রাখতে চাইলে খুব ভালো ভাবে অলিভ ওয়েল ম্যাসাজ করেও বেশ উপকার পাওয়া যায়।

ওয়াক্সিং করার পর আপনার হাত ও পায়ের কমলীয়তা বজায় রাখার জন্য জলপাই তেল দিয়ে  হাত ও পা ভালোভাবে ম্যাসেজ করে নিতে পারেন।

পার্লারে চুল সেট করে সেই চুল খোলা বেশ ঝামেলার হয়ে থাকে । কাজেই খুব সহজেই সেট করা চুলের উপর অলিভ ওয়েল দিয়ে ৫ মিনিট রেখে তারপর ধীরে ধীরে চিরুনী দিয়ে খুলে ফেলুন। এতে চুল নষ্ট হবার ভয় কম থাকে।

যদি কখনো ব্যাগ বা প্যান্টের চেইন শক্ত হয়ে যায় আটকাতে সমস্যা হয় সে ক্ষেত্রে সামান্য অলিভ ওয়েল দিয়ে তারপর চেইন টানলেই তা ঠিকভাবে কাজ করবে।

লোমযুক্ত পোষা প্রাণীর লোম থেকেই তৈরি করতে পারবেন একটি চমৎকার চকচকে কোট সে ক্ষেত্রে আপনার বাসার লোমযুক্ত পোষা প্রাণী থাকলে তার খাবারের সাথে হাফ চা চামচ অলিভওয়েল মিশিয়ে দিন রোজ।

অলিভ ওয়েল-এর সমপরিমাণ মোম একটি বায়ুরোধী কন্টেনারে রেখে তৈরি করতে পারেন আপানার নিজের ঠোটের লিপবাম।

ঝলমলে আর প্রাণবন্ত চুল পেতে চাই কন্ডিশনার, আর এ মাধ্যমটি ঘরে বসেই করে ফেলতে পারেন। প্রথমেই চুলে অলিভ ওয়েল দিয়ে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন তারপর একটি গরম তোয়ালে দিয়ে ১৫ মিনিট ঢেকে রেখে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

ঘরে পিতলের জিনিসপত্র সামান্য অলিভ ওয়েল দিয়ে ভালোকরে পরিস্কার করে নিলেই জ্বলজ্বলে আর চকচকে হয়ে যাবে।

মুখের ভারি মেকআপ তুলতে একটু অলিভওয়েল ব্যবহার করলেই পুরো মুখ পরিস্কার হয়ে যাবে।

কানের ময়লা দূর করতে ঐতিহ্যগতভাবেই অলিভ ওয়েল ব্যবহার হয়ে আসছে।

দাঁতের সুরক্ষায় আমরা অলিভ ওয়েল ব্যবহার করতে পারি।

চামড়ার জুতো ও ব্যাগ উজ্জ্বল করে তুলতে অলিভওয়েল ব্যবহার করা যেতে পারে।

অলিভ ওয়েল এর সাথে এক চা চামচ চিনি মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করে ঘরে বসেই ত্বকের মৃতকোষ তুলে ফেলা যায়।

আপনার ছোট শিশুর গায়ে ফুসকুড়ি বা র‍্যাশ উঠে থাকলে তাতে অলিভওয়েল ব্যবহার করে সহেজেই মুক্তি লাভ সম্ভব।

Comments are closed.