কেউ বিশঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে তা আওয়ামী লীগ প্রতিহত করবেঃ আ.লীগ নেতৃবৃন্দ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

গণতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কক্সবাজার জেলা শাখায় আয়োজিত এক বিশাল জনসভা কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেতা এডঃ সিরাজুল মোস্তফার সভাপতিত্বে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে অনুষ্ঠিত হয়। জনসভায় বক্তব্য রাখেন- কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জননেতা মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, কক্সবাজার-৩ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, কক্সবাজার-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমেদ সিআইপি, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এডঃ আমজাদ হোসেন, এম. আজিজুর রহমান, রেজাউল করিম, মাহবুবুল হক মুকুল, এডঃ ফরিদুল আলম, এডঃ তাপস রক্ষিত, মেয়র মাহবুবুর রহমান মাবু, এইচ.এম ইউনুছ বাঙ্গালী, হেলাল উদ্দিন কবির, শহর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজিবুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রনেতা ওসমান গণি, শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, কৃষক লীগ সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী, ছাত্রলীগ সভাপতি ইশতিয়াক আহমদ জয়, যুব মহিলা লীগ সভাপতি আয়েশা সিরাজ, ওলামা লীগ সভাপতি মাওঃ নুরুল আলম সরকার, বাস্তুহারা লীগ সভাপতি হারুণ অর রশিদ। সভা সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এম.এ মনজুর। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ড. মাওঃ নুরুল আবছার। জনসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতা বদিউল আলম সিকদার, এডঃ আয়াছুর রহমান, এ.টি.এম জিয়া উদ্দিন, জি.এম কাশেম, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আলহাজ্ব শফিকুর রহমান কোম্পানী, কৃষক লীগ নেতা, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু উজ্জ্বল কর, আনিসুল হক চৌধুরী, শ্রমিক লীগ সাধারণ সম্পাদক শফি উল্লাহ আনছারী, যুব মহিলা লীগ সাধারণ সম্পাদক তাহমিনা চৌধুরী লুনা, বাস্তুহারা লীগ সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচন একটি সাংবিধানিক নির্বাচন। এই নির্বাচনে বিএনপি, জামায়াত চক্র অংশ না নিয়ে সংবিধান লঙ্গন করে এবং সারা দেশে জঙ্গিবাদ, হরতাল, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে নিরহ মানুষ হত্যা, আগুন সন্ত্রাসের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মারা এবং রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করে দেশের উন্নয়নের গতি বাঁধাগ্রস্থ করার অপচেষ্টা করে। দেশের মানুষ এই নির্বাচনকে মেনে নিয়ে গণতন্ত্রের মানস কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানায়। জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের প্রতি আস্থা রেখে তার উন্নয়ন কর্মকান্ড আজকের দিন পর্যন্ত চালিয়ে যাচ্ছেন। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় ব্যাপক উন্নতি সাধন হয়েছে। দেশ খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। সাধারণ মানুষের আয় বেড়েছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশে রূপান্তরিত হওয়া অকল্পনীয় কোন কিছু নয়। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশ। নেতৃবৃন্দ সকল ষড়যন্ত্র ও ধ্বংসাত্বক কার্যকলাপ থেকে বিরত থেকে বিএনপিকে ২০১৯ সালের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ দৃঢ় ভাবে বলেন, কোন ষড়যন্ত্র ও ধ্বংসাত্বক কার্যকলাপ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাঁধাগ্রস্থ করতে পারবে না।

Comments are closed.