গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করছে আ.লীগ

ওয়ান নিউজ: আজ বহুল আলোচিত ৫ জানুয়ারি। কয়েকদিন ধরে এই দিনটিকে ঘিরে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে রাজনৈতিক অঙ্গনে। আজ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের তিন বছর পূর্তি হলো। এই উপলক্ষে দলটি গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করছে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপিসহ অধিকাংশ নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল। একতরফা ওই নির্বাচনে জয়ী হয়ে আওয়ামী লীগ টানা দ্বিতীয়বার সরকার গঠন করে। এ দিনটি উপলক্ষে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী প্রধান দুই দলই রাজপথে পৃথক মিছিল-সমাবেশের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ নিয়ে জনমনে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা থাকলেও শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দুই দলই। ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে আওয়ামী লীগ ওইদিন ঢাকাসহ সারা দেশে শান্তিপূর্ণভাবে বিজয়োৎসব পালন করছে।

 

অন্যদিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে ওইদিন বিএনপি সারা দেশে ‘কালো পতাকা’ মিছিল করার ঘোষণা দিয়েছে। সেই সাথে আজ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিশেষ আদালতে হাজিরার দিন ধার্য থাকায় বিএনপিতে একটু বাড়তি উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে ৫ জানুয়ারি ঢাকায় বিএনপির কর্মসূচি শিথিল করা হয়েছে।

 

প্রতি বছর বিএনপি দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আর আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছে। ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পরস্পরবিরোধী অবস্থান নেয়।

 

সরকারের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, ৭ জানুয়ারি বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে শেষ মুহূর্তে কিছু শর্ত দেয়া হতে পারে। এ ছাড়া সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পরিবর্তে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুমতি দেয়া হতে পারে। আর বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে, বিকল্প স্থানে হলেও তারা সমাবেশ করবে। সরকারের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, বিএনপির কর্মসূচিতে যাতে বেশি মানুষের জমায়েত না হয়, সে জন্য নানা প্রশাসনিক বাধা তৈরি করা হবে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিশ্চিত করারও পরিকল্পনা রয়েছে। তবে গায়ে পড়ে বিএনপির সঙ্গে কোনো রকম সংঘাতে জড়ানোর পরিকল্পনা নেই আওয়ামী লীগের।

 

আওয়ামী লীগের সূত্র জানায়, ৫ জানুয়ারিতে বিএনপিকে ঢাকায় কোনো কর্মসূচি করতে দেয়া হবে না এই মনোভাব তারা আগেই নানাভাবে বিএনপিকে বুঝিয়ে দিয়েছে। আর বিএনপির সূত্র জানিয়েছে, তারাও সব ধরনের সংঘাত এড়িয়ে কর্মসূচি পালন করার পক্ষে। এ জন্যই ৫ জানুয়ারি ঢাকায় কোনো কর্মসূচি দেয়া হয়নি।

 

আওয়ামী লীগের কর্মসূচি: দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তির দিন আজ ৫ জানুয়ারিকে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ হিসেবে পালন করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। রাজধানীতে দুটি সমাবেশ ও জেলা-উপজেলায় সমাবেশ করবে দলটি। এ ছাড়া এমপিদের নেতৃত্বে ৩০০ নির্বাচনী এলাকায় বিকাল সাড়ে ৩টায় একযোগে আনন্দ মিছিল, বর্ণাঢ্য বিজয় শোভাযাত্রা ও সমাবেশ করার কথা রয়েছে। আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট নেতারা জানান, ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের বর্ষপূর্তি সামনে রেখে যাতে বিরোধী জোট কোনো নাশকতা করতে না পারে সে লক্ষ্যে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হচ্ছে। এ ছাড়া ওইদিন দেশব্যাপী আনন্দ মিছিলে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্ব ও পরবর্তী সময়ে বিএনপি-জামায়াত জোটের ভয়াল নারকীয় সহিংসতা ও মানুষ হত্যার ঘটনা ভিডিও প্রদর্শন, পোস্টার-লিফলেটের মাধ্যমে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরা হবে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ ধানমণ্ডির রাসেল স্কয়ার ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে সমাবেশ করবে।

Comments are closed.