নীলসাগর অফিসে হামলায় দেশব্যাপী নিন্দার ঝড়

ডেক্স নিউজঃ
হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘নীলসাগর গ্রুপের মতো একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানে যারা হামলা চালিয়েছে, তারা জঘন্যতম কাজ করেছে। এমন একটি সময়ে যারা এ শিল্প প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়েছে তারা শুধু নীলসাগর গ্রুপেরই ক্ষতি করেনি, দেশেরও ক্ষতিসাধন করেছে। তারা শিল্পের ক্ষতি করেছে।‘ তিনি অবিলম্বে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

এছাড়াও হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), রংপুর জেলা কমিটির সদস্য সচিব মোমিনুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী, বিশিষ্ট লেখক ও কলামিস্ট আজমত রানা, দিনাজপুর জজ কোর্টের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট সামসুর রহমান পারভেজ, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএসএসএফ) দিনাজপুর শাখার সভাপতি সুলতান মাহমুদ চৌধুরী, পাটোয়ারী বিজনেস হাউসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহিদুর রহমান পাটোয়ারী মোহন, পঞ্চগড় জেলা পরিষদ আনোয়ার সাদাত সম্রাট, পঞ্চগড় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গাইবান্ধা জেলা কমিটির সভাপতি মিহির ঘোষ, কুড়িগ্রাম চেম্বার অব কমার্সের সহসভাপতি অলক সরকার, কুড়িগ্রাম আদর্শ পৌর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম এবং ৭১-এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক দুলাল বোস। তারা এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

রাজশাহী : এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে রাজশাহী চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ‘ব্যবসায়ীরা দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা ছাড়াও দেশের রাজস্ব খাতে ব্যবসায়ীরা যে পরিমাণ ট্যাক্স ও ভ্যাট প্রদান করেন, তা দিয়ে দেশের উন্নয়ন কর্মকা- সম্পন্ন হয়। নীলসাগর গ্রুপের মতো স্বনামধন্য একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের অফিসে হামলার ঘটনা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।’ তিনি হামলার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

রাজশাহী সম্মিলিত ব্যবসায়ী ঐক্যজোটের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার আলী বলেন, এ ধরনের হামলা দেশের অর্থনীতির ওপর আঘাতের শামিল। এ ধরনের অপরাধমূলক কর্মকা- কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি ও চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহাবুল আলম এক বিবৃতিতে নীলসাগর গ্রুপের অফিসে হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি ঘটনার সঠিক তদন্ত ও জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহাবুল আলম বলেন, ‘নীলসাগর অফিসে হামলা ও টাকা লুটের ঘটনা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এ হামলা জাতীয় অর্থনীতির ওপর হামলা। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ওপর হামলা করে বিগত দিনে যেমন কেউ রক্ষা পায়নি, সামনের দিনগুলোতেও রক্ষা পাবে না।’

চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সহসভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী, সিনিয়র সহসভাপতি আবিদা মোস্তফা ও ডা. মুনাল মাহবুব এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, নীলসাগর অফিসে হামলা ও টাকা লুটের ঘটনা ন্যক্কারজনক ঘটনা। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি না হলে তারা ভবিষ্যতে বড় ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়াবে।’

>সিলেট : নীলসাগর গ্রুপের অফিসে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ও সিলেট চেম্বারের সাবেক প্রশাসক ফারুক মাহমুদ চৌধুরী। তিনি ন্যক্কারজনক এ হামলার সঙ্গে জড়িত মারুফ জামান কোয়েল ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

খুলনা : হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক কাজী মোতাহার রহমান, এনামুল হক, জিয়াউস শাহাদাত, সোহরাব হোসেন, মোহাম্মাদ নুরুজ্জামান, ডি এম রেজা সোহাগ, হারুন-অর-রশিদ, জামাল হোসেন, ইউসুফ শেখ, আজিম, শহিদুল ইসলাম ও হাবিবুর রহমান তারেক।

বরিশাল : হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বরিশালের সাংবাদিক নেতারা। শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘শিল্প উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানে দিনে দুপুরে হামলা খুবই উদ্বেগের বিষয়। আমি বরিশাল প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

ময়মনসিংহ : নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্সের সহসভাপতি শংকর সাহা, ব্যবসায়ী মো. সিরাজুল ইসলাম সুরুজ, জেলা বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি সুমন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা নেতা সেলিম সরকার, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের নেতা ফজলে রানা, মোয়াজ্জেম হোসেন, ময়মনসিংহ বণিক সমিতি, মুক্তাগাছা ব্যবসায়ী সমিতি, ফুলপুর ব্যবসায়ী সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠন এবং ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, গত শনিবার সকালে নীলফামারী শহরের মাস্টারপাড়ায় অবস্থিত নীলসাগর গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ইয়োথ এগ্রো ফার্মের অফিসে লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে দুদকের মামলার আসামি মারুফ জামান কোয়েলের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা অফিসে থাকা কর্মচারীদের মারধর করে বের করে দেয়। লুট করা হয় কর্মচারীদের বেতন বোনাসের জন্য রাখা তিন কোটি টাকা। এছাড়াও ভাঙচুর করা হয় আসবাবপত্র, বিলবোর্ড ও অন্যান্য জিনিসপত্র।

Comments are closed.