দেশে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক শনাক্তের রেকর্ড

বার্তা ডেক্সঃ প্রাণসংহারী করোনাভাইরাসে দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক শনাক্তের রেকর্ড হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ৪ হাজার ১৯ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত দেড় লাখ (১ লাখ ৫৩ হাজার ২৭৭) ছাড়িয়েছে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৮ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু ১ হাজার ৯২৬ জনের। আর এ সময়ের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৩৩৪ জন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে করোনাভাইরাস সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

নাসিমা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৭ হাজার ৯৪৭টি। পরীক্ষা হয়েছে ১৮ হাজার ৩৬২টি। এতে একদিনে সর্বোচ্চ ৪ হাজার ১৯ জন শনাক্ত হয়েছেন। গতকাল (১ জুলাই) একদিনে সর্বোচ্চ ১৮ হাজার ৪২৬টি নমুনা পরীক্ষার কথা জানানো হয়েছিল। এতে ৩ হাজার ৬৮২ জন শনাক্ত হন। এর আগে গত ২৯ জুন একদিনে সর্বোচ্চ ৪ হাজার ১৪ জন শনাক্তের কথা জানানো হয়েছিল। আর গত ১৭ জুন একদিনে সর্বোচ্চ ১৮ হাজার ৯২২জনের নমুনা সংগ্রহ করে ১৭ হাজার ৫২৭টির পরীক্ষায় ৪ হাজার ৪ জন শনাক্তের কথা জানানো হয়েছিল।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের দিক দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে ভারত ও পাকিস্তানের পরই এখন বাংলাদেশ। উৎসস্থল চীনকে ছাড়িয়েছে এ তিনটি দেশই। দেশে ইতোমধ্যে শনাক্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়েছে। এ পর্যন্ত ৮ লাখ ২ হাজার ৬৯৭ জনের করোনা পরীক্ষা করে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৭৭ জনে। বর্তমানে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান কানাডাকে পেছনে ফেলে ১৭তম। আর এশিয়ার ৪৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ষষ্ঠ। এর আগে রয়েছে ভারত, ইরান, তুরস্ক, পাকিস্তান ও সৌদি আরব।

নাসিমা আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৮ জন। গত ৩০ জুন একদিনে সর্বোচ্চ ৬৪ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছিল। এ নিয়ে মোট মৃত্যু ১ হাজার ৯২৬ জনের। নতুন মৃতদের মধ্যে পুরুষ ৩২ ও নারী ৬ জন।

Comments are closed.