করোনা প্রতিরোধে সরকারের অব্যবস্থাপনায় সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছেঃ মির্জা ফখরুল

fakhrul-BNP-1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈনুদ্দিনের মৃত্যুই প্রমাণ করে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কতটা ভঙ্গুর।

শুক্রবার বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘তার (ডা. মঈন উদ্দিন) মৃত্যু একটা সত্যকে উদঘাটন করেছে। আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কতটা ভঙ্গুর যে, একজন চিকিৎসকের নিরাপত্তা আমরা দিতে পারিনি। ইতোমধ্যে খবর এসেছে আরও কয়েকজন চিকিৎসক, সেবিকা এবং টেকনিশিয়ান করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। অনেকে আইসোলেশনে আছেন।’

করোনাভাইরাস ভয়াবহ অদৃশ্য দানবের মতো পৃথিবীটাকে তছনছ করে দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘গতকাল পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছে ২১ লাখ ২৯ হাজার, ৩৫৫ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৪২ হাজার ৭০৭ জন। বাংলাদেশে সংক্রমিত হয়েছে ১৫৭২ জন, মারা গেছেন ৬০ জন। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গতকাল সমগ্র দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে। অথচ এ বিষয়টি আমরা অনেক আগে থেকে বলে আসছি। চীনে করোনাভাইরাস শনাক্তের সঙ্গে সঙ্গে আমরা এই বিষয় নিয়ে কথা বলেছি, আমরা লিফলেট দিয়েছি, মাস্ক বিতরণ করেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তথ্যমন্ত্রী এসব দেখতে পারেন না। আওয়ামী লীগের লোকজন বারবার বলে যাচ্ছেন, বিএনপি নাকি কোনো কাজ করছে না।’

এ বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা শুরু থেকেই বিষয়টি বলে আসছি। করোনা প্রতিরোধের মূল কাজ হলো- পরীক্ষা, পরীক্ষা এবং পরীক্ষা।

করোনা প্রতিরোধে সরকারের অব্যবস্থাপনার চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, করোনা এখন ঢাকা থেকে গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বিদেশ থেকে যারা এসেছেন, তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়নি। তারা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর করোনা প্যাকেজের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন তা শুভংকরের ফাঁকি। সরকারি তহবিল থেকে খুবই সামান্য অংশ দেয়া হবে। বাকিটা গ্রাহক-ব্যাংকের সম্পর্কের ভিত্তিতে ঋণ দেয়া হবে। এতে করে ব্যাংকের তারল্য সংকট হবে। অন্যান্য সেক্টরে ঋণ দিতে পারবে না।