কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রোগীরা অভিযোগ জানাতে ডিজিটাল বুথ

imam-khair.jpg

মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন, কক্সবাজার।
আর দশটা সরকারি হাসপাতালের মতোই ছিল কক্সবাজার সদর হাসপাতালের পরিবেশ। ভেতরে-বাইরে নোংরা, অপরিচ্ছন্ন,দালালদের উৎপাত। সবার মধ্যে গা ছাড়া ভাব। এটা নেই, ওটা নেই। সেবার মান নিম্ন।এখন হাসপাতালের ভেতর বাইরে ঝকঝকে। কোথাও ময়লা আবর্জনা নেই। নেই কোনো দুর্গন্ধ কথাগুলো বলছিলেন সেবা নিতে আসা আরমান নামের একজন।।
এদিকে সরকারি হাসপাতাল নিয়ে রোগীদের যে বিস্তর অভিযোগ তা অনেকটা কমেছে বলে মনে করছেন হাসপাতাল কতৃপক্ষ। এই বছর দুই এর মধ্যে হাসপাতালটিতে আমূল এই পরিবর্তন এসেছে বলে জানান তারা।

এবার নতুন সংযোজন করেছে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল। সেবা নিতে আসা রোগীরা কেমন সেবা পেয়েছে বা রোগীদের কোন অভিযোগ থাকলে তা জানাবে সন্তুষ্টি বুথ নামের ডিজিটাল মেশিন এর মাধ্যমে।এজন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে বসানো হয়েছে ইউনিসেফ এর সহযোগিতায় সন্তুষ্টি বুথ। সেবা গ্রহনকারীরা যেন মেশিনের মাধ্যমে জানাতে পারে তাদের অভিমত। এটি গত ডিসেম্বর মাসে বসানো হয়েছে হাসপাতালের ইর্মাজেন্সী রুমে। মেশিনটির নাম দেয়া হয়েছে সন্তুষ্টি বুথ। এই বুথের মাধ্যমে হাসপাতালে আসা রোগীরা কেমন সেবা পেয়েছে তা জানাতে পারবে অনায়াসে। এই বুথে তিনটি প্রশ্ন আছে বাটন চাপ দিলে তা সয়ংক্রিয় ভাবে প্রশ্নগুলো স্ক্রীনে চলে আসবে প্রথমে লেখা আছে এই হাসপাতালের সেবা নিয়ে আপনি কি সন্তুষ্ট? প্রশ্নের নিচে তিনটি অপশন আছে তা হলো খুবই সন্তুষ্ট, সন্তুষ্ট, অসন্তুষ্ট, এই তিনটি দিয়ে শুরু করে পর্যায় ক্রমে আরো প্রশ্ন আসতে থাকবে তা ক্লিক করার মাধ্যমে উত্তর প্রদান করা যাবে।
ইমার্জেন্সীতে সেবা নিতে আসা সোহেল নামের একজন জানান, আসলে আগের কক্সবাজার সদর হাসপাতার আর এখন অনেক তফাৎ দেখা যায় সেইদিনের কথা ইমার্জেন্সীতে ডুকলে গন্ধে থাকা যেতনা এখন আসবাবপত্র থেকে শুরু করে সব পরির্বতন হয়েছে এবং সেবার মান বেড়েছে।
কক্সবাজার সদর হাসপাতালেন তত্ত্বাবধায়ক ড়াক্তার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, আমরা এই বুথের মাধ্যমে জানতে পারবো হাসপাতালের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ কেমন কাজ করছে। এর উপর ভিত্তি করে আমাদের সেবার মান আরো বাড়াতে হলে প্রয়োজনে আমরা তাই করবো।
কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক মেড়িকেল অফিসার শাহিন মোঃ আবদুর রহমান জানান, এই বুথ বাংলাদেশের পাঁচটি জায়গায় বসানো হয়েছে তার মধ্যে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল একটি।এই সন্তুষ্টি বুথ বসানো হয়েছে রোগিরা কেমন সেবা পাচ্ছে তা জানতে এবং এর মাধ্যমে আমদের জানাতে পারবেন। সব রোগীদের সাথে কথা বলতে না পারলেও এখন এই মেশিনের মাধ্যমে হাসপাতালে কোথাও সমস্যা আছে কিনা তা জনজরিপে উঠে আসবে।