ঝিনাইদহে প্রতিবন্ধি মেয়েকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যা ঘাতক বাবা আটক

Arrest.jpg

রামিম হাসান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে মরিয়ম খাতুন (৬) নামের এক প্রতিবন্ধি শিশুকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যা করেছে তার বাবা। এ ঘটনার পর শনিবার বিকালেই ঘাতক বাবাকে আটক করে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে কালীগঞ্জ পৌরসভাধীন চাপালী গ্রামের স্কুল পাড়ায়। মরিয়ম ওই গ্রামের গ্যারেজ মিস্ত্রী হযরত আলীর মেয়ে বলে পুলিশ জানিয়েছে। জন্ম থেকে শারীরিক ও বাক প্রতিবন্ধি মরিয়ম খাতুনের তিন বছরের আরো একটি ভাই রয়েছে।

পুলিশ ও প্রতিবেশীরা জানান, মরিয়ম জন্মের পর থেকে শারীরিক ও বাক প্রতিবন্ধি ছিল। মেয়ে প্রতিবন্ধি হওয়ায় প্রায়ই তার বাবা বিরক্ত হয়ে গালমন্দ করতো। ঘটনার দিন শনিবার সকালে হযরত আলী ঘুম থেকে উঠে মেয়ে মরিয়মকে মারধর করে। এরপর ছাদে নিয়ে নিচে ফেলে দেয়। এতে সে মারাত্বক আহত হয়। এসময় প্রতিবেশিদের সহযোগীতায় প্রথমে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয় মরিয়মকে। সেখান থেকে যশোর নেওয়া হলে চিকিৎসকরা ঢাকায় রেফার করে। ঢাকায় নেওয়ার পথে দুপুর ২টার দিকে ফেরীঘাটে পৌছালে সে মারা যায়।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মোহাঃ মাহফুজুর রহমান মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সংবাদ পাওয়ার পর শনিবার বিকালে ঘাতক বাবা হযরত আলীকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ধারনা করা হচ্ছে মুিরয়মকে তার বাবা হযরত আলীই হত্যা করেছে।