শার্শায় জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাস গৃহ নির্মাণ

প্রকল্পের আওতায় ৩ শত ৫৬ জন পরিবারকে ঘর দেয়া হয়েছে।
Jusere.jpg

ইয়ানূর রহমান : যশোরের শার্শায় জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রধান মন্ত্রির কার্যালয় এবং দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় অতি দরিদ্র পরিবারে মাঝে বাসগৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন। পাকা ঘর পেয়ে খুশি হত দরিদ্র এসব পরিবার। তাই সরকারের এমন উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়েছেন ।

যশোরের শার্শার ১১টি ইউনিয়নে হত দরিদ্রদের দুর্দশা লাঘবে জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় পাকা বাড়ি তৈরি করে দিয়েছেন সরকার। জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে ৩ শত ৩৩টি ও দূর্যোগ সহনীয় প্রকল্পে ২৩টি পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে। রোদ বৃষ্টি ঝড়ে ভাঙ্গা চুড়া ঘরে অনেক কষ্টে দিন যাপন করা মানুষ গুলো কখনো কল্পনা করতে পারেনি এমন বাড়িতে তারা বসবাস করতে পারবেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন বাড়ি পেয়ে খুশি তারা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল বলেন, জমি আছে ঘর নাই বা ঘর জরাজির্ণ প্রকল্পটি প্রধান মন্ত্রীর যুগান্তকারী পদক্ষেপ। যারা গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র মানুষ যাদের জমি আছে ঘর নির্মাণ করার সামর্থ নেই। প্রধান মন্ত্রীর দপ্তর থেকে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। শার্শা উপজেলায় ৩ শত ৩৩টি ঘর বরাদ্ধ পাওয়া গেছে। ঘর নির্মাণ কাজ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতা লাল্টু মিয়া বলেন, শার্শা উপজেলায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো ও রক্ষনা বেক্ষন কর্মসুচির আওতায় ২৩টি দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ করা হয়েছে। গুণগত মান বজায় রেখে সুন্দর ভাবে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তাতে উপকার ভোগীরা বসবাস করছে। আগামীতে ঘরের পরিমাণ বাড়ানো হলে প্রান্তিক মানুষের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে।

সরকারের এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক জানান, শার্শার উলাশী ইউনিয়নের অনেক পরিবার ঘরের অভাবে দূর্বীসহ জীবন যাপন করত। প্রধান মন্ত্রীর যুগান্তকারী এ পদক্ষেপে অসহায় পরিবার গুলো মাথা গোজার ঠাই পেয়েছে।