কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার-১২

Cox-16.jpg

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ  

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত ১২ জনকে আটক করেছে। গত ০২/০৮/২০১৯ ইং তারিখ হতে সকাল হতে ০৩/০৮/২০১৯ ইং তারিখ সকাল পর্যন্ত অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জনাব মোহাম্মদ খায়রুজ্জামান পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্ এ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং), মোঃ ইয়াছিন পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স) মোহাম্মদ আরিফ ইকবাল, পুলিশ পরিদর্শক আসাদুজ্জামান এসআই কাঞ্চন দাশ, এসআই আবুল কালাম-২, এসআই সনৎ বড়–য়া,এসআই বেলাল, এএসআই আশিক হায়দার বাকী, এএসআই নিজাম, এএসআই কামাল-২ এএসআই হারুন, সঙ্গীয় ফোর্স এবং ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান খান সহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১২ জন আসামীকে গ্রেফতার করেন কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন
১। দৌলত,পিতা-মোঃ কামরুল ভূইয়া,সাং-হাটগজারী,থানা-পাঁচলাইশ,জেলা-চট্টগ্রাম।
২। রুবেল রানা,পিতা-আনোয়ার হোসেন,সাং-ওয়াইদআলী,হাজী বাড়ী,০৬ নং ওয়ার্ড,চাঁদখীল ইউপি,থানা ও জেলা-লক্ষীপুর।
৩। মোঃ সাদ্দাম,পিতা-লোকমান হাকিম,সাং-ইসলামাবাদ,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৪। ছাদেকুর রশিদ,পিতা-আব্দুল মালেক,সাং-ইসলামাবাদ,বর্তমান-টেকপাড়া,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৫। রেজাউল করিম,পিতা-শাহ আলম,সাং-তেচ্ছাপাড়,থানা-চকরিয়া,জেলা-কক্সবাজার।
৬। হারুনর অর রশিদ,পিতা-আমান উল্লাহ,ডুমছড়ি,পিএমখালী,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৭। হাসিনা খাতুন,স্বামী-লেদু মিয়া,সাং-কুতুপালং,লম্বাঘোনা,থানা-উখিয়া,জেলা-কক্সবাজার।
৮। শাহ আলম,পিতা-আব্দুল হক মাঝি,সাং-পেতা সওদাগর পাড়া,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

ওয়ারেন্ট সংক্রান্তে গ্রেফতারঃ
১। রেজাউল করিম,পিতা-মৃত নাজির আহমদ,সাং-উত্তর তারাবুনিয়ারছড়া,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
২।ছৈয়দুল হক,পিতা-আব্দুর রশিদ,সাং-দক্ষিন পাওলী,পিএমখালী,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৩।মোঃ আব্দুল্লাহ,পিতা-মোক্তার আহম্মদ,সাং-পূর্ব বামনপাড়া,ইসলামপুর,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
৪। ওমর আলী মাঝি,পিতা-কালু মিয়া,সাং-নাপিত খালী,ইসলামপুর,থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাহাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আম জনতা ও পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের লক্ষ্যে মামলায় অভিযুক্ত ও চিহিৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে