বৃষ্টি নামার আগে নিউজিল্যান্ড ২১১/৫

বৃষ্টিতে বন্ধ ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ
old-trafford.jpg

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বৃষ্টির শঙ্কা রয়েছে। বৃষ্টির কল্যাণে হয়তো বা ভারত সরাসরিই উঠে যেতে পারে ফাইনালে। এমন অনেক কথা শোনা গেলেও, শেষ পর্যন্ত ঠিক সময়েই ম্যাচ মাঠে গড়িয়েছে।

কিন্তু অবশেষে সেই বৃষ্টির বাগড়া পড়লোই ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচে। টস জিতে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ড ইনিংসের ৪৭তম ওভারেই নেমেছে বৃষ্টি। যে কারণে বন্ধ রয়েছে প্রথম সেমিফাইনালের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি।

বৃষ্টি আসার আগ পর্যন্ত খেলা হয়েছে ৪৬.১ ওভার। এ সময় নিউজিল্যান্ডের রান ছিল ৫ উইকেট হারিয়ে ২১১। ৮৫ বলে ৬৭ রানে অপরাজিত রস টেলর। তার সঙ্গী ৪ বলে ৩ রান করা টম ল্যাথাম। ৯৬ বল খেলে ৬৭ রান করে আউট হন কেন উইলিয়ামসন। এছাড়া হেনরি নিকোলস আউট হন ৫১ বলে ২৮ রান করে।

বিশ্বকাপের শুরুতে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে চলছিল তাদের জয়যাত্রা। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের ছন্দপতন ঘটতে শুরু করে পাকিস্তানের কাছে হারের পর। গ্রুপ পর্বের শেষ তিনটি ম্যাচ টানা হেরে গেলেও রানরেটের ব্যবধানে চতুর্থ হয়ে সেমিফাইনালে নাম লেখায় তারা।

সেমিতে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মুখোমুখি তারা ভারতের। টস জিতে স্কোরবোর্ডে একটা চ্যালেঞ্জিং স্কোর তোলার লক্ষ্যে শুরুতেই ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু ভারতীয় বোলারদের সামনে যে গতিতে রান তুলছে তারা, তাকে কচ্ছপ গতির সঙ্গে তুলনা করলেও যেন কম করা হবে।

শুরুতেই নিউজ্যিলান্ডের ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরেন ভারতীয় বোলাররা। বিশেষ করে দুই ওপেনিং বোলার ভুবনেশ্বর কুমার আর জসপ্রিত বুমরাহ। কিউইরা রানের খাতাই খোলে প্রথম দুই ওভার মেডেন দিয়ে ইনিংসের ১৭তম বলে গিয়ে। তিন ওভার শেষে ১ রান।

চতুর্থ ওভারে গিয়ে জসপ্রিত বুমরাহর বলে ব্যাটের কানায় লাগিয়ে থার্ড স্লিপে ক্যাচ দেন মার্টিন গাপটিল। বিরাট কোহলির হাতে ধরা পড়ে বিদায় নেন গাপটিল। পুরো বিশ্বকাপেই (এক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ ছাড়া) ফ্লপ ছিলেন এই কিউই ওপেনার।

ভারতীয় বোলাররা শুরু থেকেই যেভাবে চাপের মুখে রেখেছিল কিউইদের, সেটা ধরে রাখলো তারা প্রায় শেষ পর্যন্ত। ইতিমধ্যে ৪০ ওভার পার হয়েছে। কিন্তু উইকেট ধরে রাখতে পারলেও রান তোলার গতি নিউজিল্যান্ডের একেবারেই মন্থর। সব মিলিয়ে ৪.৫৭ হারে।