ওসি আবুল মনসুর রামু উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উচ্চ প্রশংসিত হয়েছেন

OC-Ramu.jpg

এস এম হুমায়ুন কবির।।

রামু উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উচ্চ প্রশংসায় ভাসলেন রামু থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল মনসুর। ৮ জুলাই সকাল ১০ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমার সভাপতিত্বে আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিং শুরু হলে উপজেলার ১১ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানরা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষ জনক অবিহিত করে একে একে সবাই ভুয়সী প্রশংসা করে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানান।বক্তব্যে ফ্লোর নিয়ে খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাংবাদিক আবদুল মাবুদ বলেন,রামুর ইতিহাসে মোঃ আবুল মনসুর সাহেব একজন সৎ,সাহসী ও ন্যায় পরায়ন অফিসার ইনচার্জ হিসাবে ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।চেয়ারম্যান আবদুল মাবুদ আরো বলেন,খুনিয়াপালং ইউনিয়নে এখন কোন ক্রাইম নেই তা কেবল সম্ভব হয়েছে ওসি আবুল মনসুর সাহেবের আন্তরিক প্রচেষ্টায়।
এর পর মিঠাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইউনুস ভুট্টো তার বক্তব্যে বলেন,পুলিশের অতীতের বদনামের রেকর্ড ভেঙ্গে সুনাম কুড়িয়েছেন রামু থানার সুযোগ্য অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল মনসুর সাহেব।এর পর ধারাবাহিক ভাবে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল মনসুর কে সাধুবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু ইসমাইল মোঃ নোমান,গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, ঈদগড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ ভুট্টো, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম,কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ,
আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল।উপজেলার সামগ্রীক পরিবেশ পরিস্থিতিতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সালাউদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফসানা জেসমিন পপি,রাজারকুল চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, চাকমারকুর চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার,রশিদ নগর চেয়ারম্যান , উপ সহঃ প্রকৌশলী আলাউদ্দিন খান, উপজেলা মৎস কর্মকর্তা, রামু আওয়ামীলীগের অর্থ সম্পাদক সাংবাদিক নুরুল ইসলাম সেলিম,সাংবাদিক আব্দুল মালেক সিকদার, রামু উপজেলা কাজী সমিতির সভাপতি মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিকসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় রামুর আইনশৃঙ্খলার সার্বিক পরিস্থিতির সম্পর্কে বিশদভাবে আলোচনা হয় এবং বর্তমানে রামুর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষজনক বলেও মতামত ব্যক্ত করেন বক্তারা ।

এছাড়া রামু চৌমুহনীর যানজট নিরসনে ভাসমান দোকান উচ্ছেদ করে সড়ক প্রসস্থকরণ ও গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা নির্ধারন, চৌমুহনীর সৌন্দর্য রক্ষা ও জনদূর্ভোগ নিরসনে ময়লা আবর্জনার স্তুপ অপসারণ, রামু চৌমুহনীতে সরকারী অর্থায়নে স্থাপিত সিসি ক্যামরাগুলোর ব্যাপারে তদারকী ও সক্রিয়করণ,বাল্য বিবাহ রোধে করণীয় ও এবং ব্যবস্থা গ্রহন ও রামুতে বিষাক্ত ধুলোর কারনে জনদূর্ভোগের বিষয়টিও গুরত্ব পায়।

আইনশৃঙ্খলা সভায় এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে মাদক ও নানা রকম অসামাজিক কার্যকলাপের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে বিহিত ব্যবস্থা করণে সভায় রেজুলেশন করা হয়। পাশাপাশি সভায় বিভিন্ন ইউনিয়নে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহণে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ।

এই সময় ব্যবসায়ীবৃন্দদেরকে সৎ ও বৈধপন্থায় ব্যবসা পরিচালনা করার আহবান জানান।পাশাপাশি প্রশাসনের এ অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়েছেন রামুর সর্বসাধারণ।