রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমার বিরুদ্ধে বহুলভাবে গণমাধ্যম প্রিন্ট মিডিয়া ও ফেসবুকে প্রকাশিত বিশেষ মহলের অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সচেতন মহল।

UNO-Ramu-4.jpg
এস এম হুমায়ুন কবির, কক্সবাজার।।
গত ১৯ জুন বিকালে রামু উপজেলার রশিদ নগর ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ড়ের থালিয়া ঘোনা এলাকায় গণ অভিযোগের পেক্ষিতে অবৈধ ভাবে ড্রেজার মেশিন  বসিয়ে বালু উত্তোলনের সত্যতা পেয়ে বালি উত্তোলনেের  সরন্জাম জব্দ এবং করেন রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন।এতে ক্ষিপ্ত বালি খেকো একটি মহল বিশেষ।তারা পরিচ্ছন্ন একজন কর্মকর্তা কে নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের হীন উদ্দেশ্যেে প্রিন্ট মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলনেের  ঘটনা কে বিকৃত ভাবে উপস্থাপন করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেছে।এহেন পরিস্থিতিতে রামু উপজেলার সচেতন মহল প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিকৃত সংবাদে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।একই সাথে মহল বিশেষের উদ্দেশ্য প্রনোদিত সংবাদে কাউ কে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।
বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত  ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রচারিত মহল বিশেষ এর মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে uno ramu  ফেইস বুক আইডি থেকে গতকাল ১৮ জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে অবৈধ বালি উত্তোলনেের  বিষয়ে জনগণের লিখিত অভিযোগেে উপর  ভিত্তি করে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করার খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন, রামু রশিদনগর ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ডের থলিয়াঘোনা এলাকায় ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে খবরের সত্যতা পাওয়া যায়। উক্ত স্থানে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের সরঞ্জাম জব্দ এবং বিনষ্ট করা হয়। এবং অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের সময় ধৃত ব্যক্তিকে বিধি মোতাবেক আইনের আওতায় এনে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিকভাবে সাজা প্রদান করা হয়। এবিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়। ভবিষ্যতে যেকোন বৈধ কাজে প্রশাসনের ভাবর্মূতি ক্ষুন্ন হয় এমন অপপ্রচার বন্ধে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হলো। অন্যথায় ভবিষ্যতে প্রশাসনের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবে।