স্বার্থপর পৃথিবীতে নিজের পথে নিজেকেই হাঁটতে হবে

Rajib..jpg

“রাজিবুল হক চৌধুরী রাজ”

স্বার্থপর পৃথিবী থেকে গত তেইশ বছর দশ মাস আটাইশ দিনে অনেক কিছুই শিখেছি । সময়ের স্রোতে হারিয়ে গেছে অনেক কিছু , তবে পাওয়ার পরিমান টাও নেহাৎ কম নয় ।

পৃথিবীর সবকিছুই বৈচিত্র্যময় ও সুন্দর । তবে আমরা দৃষ্টিটা আর একটু ক্ষীণ করলেই বুঝতে পারি এই বৈচিত্র্যময় পৃথিবীর জীবগুলো কতটা স্বার্থপর । এখানে বিশাল থেকে অনুবীক্ষণিক জীব পর্যন্ত সবাই স্বার্থপর । বিশাল প্রাণি ডাইনোসর এতটাই স্বার্থপর হয়ে উঠেছিল যে নিজের অস্তিত্ব টাই আজ হারিয়ে ফেলেছে । শুধু তাই নয় আনুবীক্ষণিক ভাইরাসও নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে শরীরের সব এন্টিবডির সঙ্গে লড়াই করতে সচেষ্ঠ থাকে । আর মানুষ তো সৃষ্টির সেরা জীব। সে স্বার্থপর না হলে কি চলে !! মানুষ এতটাই আত্মকেন্দ্রিক যে রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় কেউ হোঁচট খেয়ে পরে গেলেও কেউ হাতটা ধরে দাঁড় করিয়ে বলবেও না “একটু সাবধানে চলবেন” নিজের পথ নিজেকেই হাঁটতে হবে। হাজার বার পরে গেলেও নিজেকেই আবার উঠে দাঁড়িয়ে পথ চলতে হবে । আপনি যদি কোনো কিছু তে পিছিয়ে পরেন তাহলে কেউ আপনাকে উৎসাহ দেবে না বরং কিভাবে আপনাকে আরো পিছিয়ে ফেলতে পারে সেই চেষ্ঠাই করবে । আপনার ব্যর্থতায় কেউ ব্যথিত হবে না বরং আপনাকে আরো অন্ধকারে তলিয়ে যাওয়ার পথ দেখাবে । তাই নিজের পথ নিজেকেই গড়তে হবে । নিজের হাতে নিজের পথকে আলোকিত করতে হবে । আর কেউ আসবে না আলোকিত করতে । অন্যকে ভেবে ,অন্যের জন্য কষ্ট পেয়ে সময় নষ্ট করা শুধুই বোকামি । যার জন্য আপনি কষ্ট পাবেন দিন শেষে সেই আপনাকে কষ্ট দেয়ার আরো নতুন নতুন উপায় খুঁজবে ।

জীবনে সেই সফল যে শতবার ব্যর্থতার পরেও হাসিমুখে ধৈর্য্য রেখে সফলতার পেছনে ছোটে । যে নিজেকে বোঝে নিজের স্বপ্নের পথে হাঁটতে জানে দিন শেষে সেই সফল ।