বিএনপিকে নোংরা রাজনীতি না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

hasan-mp.jpg

বিএনপির উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশের উন্নয়ন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলাসহ সবকিছু নিয়ে নোংরা রাজনীতি করবেন না। দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ান। আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখুন, অতীতে মানুষের জীবন নিয়ে নির্মম তামাশার জন্য ক্ষমা চান।

আজ শুক্রবার সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে দলের প্রচার উপকমিটির সভার শুরুতে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় মন্ত্রী হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবিলায় সরকারের প্রস্তুতি, পদ্মাসেতু ও কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণ নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতিবাচক মন্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।

বিএনপির উদ্দেশে মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা বিএনপির মতো লোক দেখানো বক্তব্য দিই না এবং তাদের অনুরোধ করব নিজেদের চেহারাটা আয়নায় দেখতে। কারণ তাদের সিদ্ধান্তের গাফিলতিতে ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ে ২ লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল। চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে বিমানবাহিনীর অনেক বিমান বিধ্বস্ত হয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল অনেক নৌজাহাজ। তিনি বলেন, প্রাণহানি ঠেকাতে যথেষ্ট সতর্কতা, বিমানগুলো ঢাকায় আনা আর নৌজাহাজগুলো নিরাপদ আশ্রয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিলে এ অপূরণীয় ক্ষতি হতো না। বিএনপির উচিত অতীতে মানুষের জীবন নিয়ে এ নির্মম তামাশার জন্য দেরিতে হলেও জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া।

হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ ভূখণ্ডের দিকে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবিলায় সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। প্রধানমন্ত্রী বিদেশে যাওয়ার আগে সরকারি কর্মকর্তাদের ও দলের নেতাদের সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিয়ে গেছেন এবং লন্ডন থেকে তদারকি করছেন। দুর্যোগ মোকাবিলায় আওয়ামী লীগের একটি বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে, উপকূল থেকে মানুষ সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, নিয়মিত মাইকিং করা হচ্ছে, দলের প্রচার উপকমিটি এ বিষয়ে আজ সভা করছে।

‘পদ্মাসেতু ও কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের কোনো প্রয়োজন ছিল না’-বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলামের এ মন্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু নির্মাণ ও উপমহাদেশের প্রথম নদীর তলদেশে টানেল তৈরির প্রকল্প জাতির জন্য গর্বের। এই দুটি প্রকল্প আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিকে আরও এক থেকে দুই শতাংশ বৃদ্ধি করবে। আর বিএনপি বলছে, এর প্রয়োজন নেই। দুর্নীতিতে তারা দেশকে চারবার একক ও আরেকবার আফ্রিকার দেশ চাদের সঙ্গে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন করেছিল। তারা যে দেশের উন্নতি চায় না, সেটা তারা তাদের কথা ও কাজ দিয়ে প্রমাণ করেছে।

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ এ সময় আসন্ন রমজান মাসে দলের সব জেলার প্রচার, উপপ্রচার এবং তথ্য ও গবেষণা সম্পাদকদের নিয়ে ঢাকায় একটি কর্মশালা ও সব বিভাগীয় শহরে সব শ্রেণি-পেশার তরুণদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সরাসরি যোগাযোগ ও সম্পৃক্তি বৃদ্ধির জন্য কর্মশালা আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানান।

সভায় আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনসহ প্রচার উপকমিটির সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।