গর্ভাবস্থায় যেসব খাবার একদম খাবেন না

a-10.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ মাতৃত্ব একজন নারীর জীবনে অন্যতম ভালোলাগার অনুভূতি। মা হওয়ার জন্য অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়, অনেকটা যন্ত্রণাদায়ক পথ পাড়ি দিতে হয়। এ সময়ে দেহে নানা রকম পরিবর্তন আসে। সবকিছুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাই শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকা বেশ জরুরী।

অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন সময়ে স্বাভাবিকের চাইতে বেশি খিদে পায়। কেবল খিদেই নয়, এসময় হরমোন জনিত কারণে মুখের স্বাদেরও পরিবর্তন ঘটে। কিন্তু দেহের ভেতর যেহেতু আরেকটি প্রাণ বেড়ে উঠছে তাই হবু মা কে বুঝে শুনেই খাবার গ্রহণ করতে হয়।

মায়ের ভুল খাবার গ্রহণে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে অনাগত শিশুর। কিছু খাবার রয়েছে যা প্রসূতি অবস্থায় এড়িয়ে চলা উচিত। সেগুলো কী? চলুন জেনে নেওয়া যাক-

কাঁচা শাক সবজি-

শাক সবজি খাওয়া অবশ্যই উচিত তবে কাঁচা শাক সবজি এসময় এড়িয়ে চলবেন। কারণ তাতে থাকতে পারে বিভিন্ন ধরণের পোকা ও পরজীবী। এগুলো পেটে গেলে মা ও শিশুর উভয়ের ক্ষতি হতে পারে।

রাস্তার পাশের ফল-

রাস্তার পাশে ফল কেটে বিক্রি করা হয়। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় এসব খোলা স্থানের ফল খাওয়া উচিত নয়। ইচ্ছে হলে ফল কিনে ভালো করে ধুয়ে, কেটে খান। রাস্তার পাশে কাটা ফলে ব্যাকটিরিয়া থাকে।

সি ফুড-

গর্ভবতী নারীরা সামুদ্রিক খাবারগুলো এড়িয়ে চলা ভালো। বিশেষ করে চিংড়ি, স্কুইড ও অন্যান্য সি ফুড এ সময় না খাওয়া উচিত।

আধা সেদ্ধ ডিম-

অনেকেই হাফ বয়েল বা আধা সেদ্ধ ডিম খেতে পছন্দ করেন। তবে আপনি যদি হবু মা হয়ে থাকেন তবে এ খাবার এড়িয়ে চলুন। কারণ এর ফলে বিভিন্ন পেটের অসুখ হতে পারে। পুডিং কিংবা কাঁচা ডিম দিয়ে তৈরি হয় এমন খাবারগুলো বাদ দিন।

চিংড়ি-

অধিকাংশ রেস্তরাঁয় স্বাদ ও গন্ধ বজায় রাখার জন্য ভালো করে চিংড়ি রান্না করা হয় না। ফলে এতে বেশ কিছু ব্যাকটেরিয়া থেকে যায় যা পেটের সমস্যার কারণ হতে পারে। এছাড়াও অনেকের চিংড়ি থেকে অ্যালার্জির সমস্যা হয়ে থাকে। তাই এসময় চিংড়ি এড়িয়ে চলুন।

অ্যালকোহল-

গর্ভাবস্থায় একেবারেই মদ্যপান করা উচিত নয়। মা মদ্যপান করলে তা মায়ের রক্ত থেকে শিশুর রক্তে অনায়াসে চলে যায়। এমনকি শিশুর মস্তিষ্কেও চলে যেতে পারে। অতিরিক্ত মদ্যপানের ফলে গর্ভপাত পর্যন্ত হতে পারে।

মৌরি ও মেথি-

এমনিতে এ দুটি মসলা দেহের জন্য ভালো। তবে গর্ভাবস্থায় এগুলো এড়িয়ে যাওয়া ভালো। বেশি মৌরি ও মেথি খেলে নির্দিষ্ট সময়ের আগে প্রসবের আশঙ্কা থেকে যায়।

এছাড়াও গর্ভাবস্থায় কাঁচা দুধ খাবেন না। খেলে ভালো করে ফুটিয়ে তারপর খান।