‘মানুষের কারণেই ফেসবুক বিলিয়নস ডলারের প্রতিষ্ঠান’

Mostafa-Jabbar-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ মানুষ ইন্টার‌্যাক্ট করতে পারে বলেই ফেসবুক বিলিয়নস ডলারের প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেছেন, ‘প্রচলিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাথে ডিজিটাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বড় এবং সহজ পার্থক্যটি হলো, মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইন্টার‌্যাক্ট করতে পারে। মানুষ ইন্টার‌্যাক্ট করতে পারে বলেই যে প্রতিষ্ঠানটির টিকে থাকার কথা ছিল না সেটি (ফেসবুক) বিলিয়নস অব ডলারের কোম্পানিতে পরিণত হয়েছে।’

সোমবার (২৯ এপ্রিল) রাতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

জনাব মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সীমানা তৈরি করা বা পাহারা দেওয়ার সুযোগ নেই। ডিজিটাল দুনিয়ায় যোগ্যতা দিয়ে টিকে থাকা এবং যোগ্যতা অর্জন করার জন্য প্রযুক্তিকে ব্যবহার করতে হবে। খুব বুদ্ধিমত্তার সাথে প্রযুক্তিকে সামনে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এমনভাবে বাণিজ্যিকীকরণ হচ্ছে যা অন্য যেকোনো গণমাধ্যমের জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই চ্যালেঞ্জ প্রযুক্তি দিয়েই মোকাবিলা করতে হবে।’

পৃথিবী একদিন কাগজবিহীন হবে উল্লেখ করে জনাব মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমরা ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করেছি। ডিজিটাল অনিবার্য এবং রূপান্তর এখন অনিবার্য। এটি কেবল গণমাধ্যম নয় ,এটি আমাদের জীবনযাপন, প্রচলিত শিক্ষা,অর্থ-বাণিজ্য নিরাপত্তা যেদিকেই তাকাই না কেন এসবের ডিজিটাল রূপান্তর অনিবার্য হয়ে গেছে।’

মোবাইল ফোনের পঞ্চম প্রজন্মের আবির্ভাবের ফলে বিদ্যমান প্রযুক্তির অভাবনীয় বিপর্যয়ের শঙ্কা প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ‘৫জি‘র ফলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, শিল্প-বাণিজ্য- কলকারখানা কী পর্যায়ে দাঁড়াবে কেউ তা আন্দাজ করতেও পারছেন না। আমাদের ভাবতে হবে সেই সময়টার জন্য আমরা কতটা প্রস্তুত। তিনি বলেন, আমাদের বর্তমান জীবনধারা থেকে শিক্ষাব্যবস্থা, মিডিয়া সমস্ত কিছুই প্রথম শিল্প বিপ্লবের ফলাফল।’

গত দশ বছরে দূরদৃষ্টি সম্পন্ন কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের ফলে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশে বাংলাদেশের অগ্রগতি বর্ণনা করে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে প্রযুক্তিতে শতশত বছর পিছিয়ে থেকেও বাংলাদেশ বিশ্বের ৮০টি দেশে সফটওয়্যার রফতানি করছে। আয়ারল্যান্ড এবং মহারাষ্ট্রের পুলিশ বাংলাদেশের সফটওয়্যার ব্যবহার করছে। একদিন আমাদের সন্তানদের তৈরি সামাজিক মাধ্যম নিয়ে সারা দুনিয়া আলোচনা করবে।’

অনুষ্ঠানে অ্যাটকো সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজাম্মেল হক বাবু এবং অ্যামটব সেক্রেটারি জেনারেল ব্রি. জে. (অব.) এস এম ফরহাদ এবং টিএমজিবি আহ্বায়ক মুহম্মদ খান বক্তৃতা করেন।

তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ টি আই এম নুরুল কবীরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর।