বিপদে পড়ে যাওয়া দলকে খেলায় ফেরান ইমরুল কায়েস ও ইভিন লুইস

Loice.jpg

রান নেয়ার সময় মাংস পেশিতে টান লাগে ইভিন লুইসের। এই চোট নিয়েই সাজঘরে ফেরেন কুমিল্লার ওপেনার। ছবি: সংগৃহীত

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ ২১ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যাওয়া দলকে খেলায় ফেরান ইমরুল কায়েস ও ইভিন লুইস। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৫৪ রান যোগ করেন তারা।

এরপর ব্যক্তিগত ২৪ রানে খালিদ হাসানের অসাধারণ ডেলিভারিতে স্টাম্প ভেঙে যায় ইমরুল কায়েসের। দলীয় ৭৫ রানে ইমরুলের বিদায়ের পর দুই রানের ব্যবধানে মাংশ পেশিতে চোট পেয়ে সাজঘরে ফেরেন দুর্দান্ত খেলতে থাকা ইভিন লুইস।

চোট পেয়ে সাজঘরে ফেরার আগে ৩৪ বলে ৩৮ রান করেন কুমিল্লার ক্যারিবীয় ওপেনার লুইস। এরপর খালিদ হাসানের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন লিয়াম দাওসন।

চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপাকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দলীয় ২১ রানে তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয়ের উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়েছে কুমিল্লা।

ইনিংসের দ্বিতীয় বলে রবি ফ্রাঙ্কলিঙ্কের বলে উইকেটকিপারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তামিম। প্রথম ওভারে দলের সেরা ব্যাটসম্যানের উইকেট হারায় কুমিল্লা।

মাত্র ২ বল খেলে শূন্য রানে ফেরেন তামিম। এর আগে চলতি বিপিএলের তিন ম্যাচে ৩৫, ৪ ও ২১ রান করেন দেশসেরা এই ওপেনার।

এরপর তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে দলের হাল ধরতে পারেননি এনামুল হক বিজয়। আবু জায়েদ রাহীর বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে রবি ফ্রাঙ্কলিঙ্কের হাতে ক্যাচ তুলে দিয় ফেরেন বিজয়। আগের তিন ম্যাচে ৫, ২, ৪০ রান করা বিজয় এদিন ফেরেন মাত্র ১০ রানে।

রোববার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিপিএলের ১৪তম ম্যাচে টস জিতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান চিটাগাং ভাইকিংসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চলতি ষষ্ঠ আসরে ইতিমধ্যে তিনটি করে ম্যাচ খেলেছে কুমিল্লা ও চিটাগাং। দল দুটি আগের তিন খেলায় দুটিতে জয় পেয়েছে।

৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিন ও চার নম্বর পজিশনে রয়েছে চিটাগাং ভাইকিংস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। আজ নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে জয়ের লক্ষ্যে খেলছে দল দুটি।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: তামিম ইকবাল, ইভিন লুইস, এনামুল হক বিজয়, ইমরুল কায়েস, লিয়াম দাওসন, শহীদ আফ্রিদি, থিসেরা পেরেরা, জিয়াউর রহমান, সাইফুউদ্দিন, আবু হায়দার রনি ও মেহেদী হাসান।

চিটাগাং ভাইকিংস: মোহাম্মদ শেহজাদ, ক্যামেরন ডেলপট, মুশফিকুর রহিম, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, রবি ফ্রাঙ্কলিঙ্ক, ইয়াসির আলী, নজিবুল্লাহ জাদরান, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী, নাঈম হাসান, সানজামুল ইসলাম ও খালিদ হাসান।