আপডেটঃ
সততার শক্তি অপরিসীম, সেটা আমরা বারবার প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি৫৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা ঢাকা ডায়নামাইটসসর্বক্ষেত্রে আল্লাহ তা’আলার নির্দেশ মেনে চলার নাম ইবাদতকক্সবাজার জেলায় ওয়াইফাই জোন স্থাপনের নিমিত্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিতবেনাপোল পুটখালী ফেনসিডিল সহ আটক ৩ফরহাদ রেজার ঝড়ে হেরে গেলেন স্বাগতিক সিলেট সিক্সার্সযে আস্থা এবং বিশ্বাস নিয়ে জনগণ আমাকে ভোট দিয়েছে, সে মর্যাদা আমি রক্ষা করবঃ প্রধানমন্ত্রীঅবশেষে জ্বলে উঠল সাব্বিরবাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোকে ফের সংলাপে বসার আহ্বান জাতিসংঘআগামী সোমবার ঘটবে পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণসভামঞ্চে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ আজ‘জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে তরুনরাই হবে আগামী দিনের সৈনিক’চট্টগ্রামে ৩টি হাইটেক পার্ক হচ্ছেপ্রতারণামূলক বাণিজ্য ‘১টি কিনলে ১০টি ফ্রি!’

আফগানিস্তানের বাদাখশান প্রদেশের সোনার খনি ধসে নিহত ৩০

Afgan.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্স: আফগানিস্তানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় বাদাখশান প্রদেশের কোহিস্তান জেলায় সোনার খনি ধসে অন্তত ৩০জন নিহত ও সাতজন আহত হয়েছে।

কোহিস্তান জেলা প্রধান রুস্তম রাঘী বলেছেন, রবিবার খনি ধসের পড়ার পর স্থানীয়রাই দ্রুত উদ্ধার অভিযান শুরু করে এবং তারা মাত্র ১৩ জনকে উদ্ধার করতে পেরেছে। নিহতদের মধ্যে কয়েকটি শিশুও রয়েছে।

গ্রামবাসী সোনার খোঁজে নদীগর্ভে ৬০ মিটার গভীর একটি গর্ত খনন করেছিল। গর্তটি যখন ধসে পড়ে তখন লোকজন ওই গর্তের ভেতরেই ছিল।

গর্তটি কেন ধসে পড়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে প্রাদেশিক গর্ভনরের মুখপাত্র নিক মোহাম্মদ নাজারি বলেন, গর্ত খনন করার সময় তা ধসে পড়ে এবং এই খনি শ্রমিকরা পেশাদার নন। সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই গ্রামবাসীরা দশকের পর দশক ধরে এই ব্যবসায়ের সাথে জড়িত।

তিনি বলেন, আমরা ওই এলাকায় উদ্ধারকারী দল পাঠিয়েছি। কিন্তু গ্রামবাসী ইতোমধ্যে মরদেহ উদ্ধার করা শুরু করেছে।

দেশটির জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের এক মুখপাত্র বলেছেন, এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে ৫০ হাজার আফগানিজ (৬৬০ ডলার) করে দেয়া হবে।

পার্বত্য বাদাখশান প্রদেশটি আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় তাজিকিস্তান, চীন ও পাকিস্তান সীমান্তে অবস্থিত। অত্যন্ত দরিদ্র এ অঞ্চলটি ভূমিধসপ্রবণ। খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ আফগানিস্তানের বেশিরভাগ খনিই পুরানো ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হয় না।

আর দেশটিতে অবৈধভাবে খনিজ সম্পদ উত্তোলন একটি সাধারণ বিষয়। কারণ এটি গ্রামবাসী ও তালেবান বিদ্রোহীদের আয়ের প্রধান উৎস। সূত্র: বিবিসি ও আল জাজিরা

Top