জঙ্গিবাদ বিরোধী অবদানের জন্য পুরষ্কৃত হলেন সম্পাদক ও নারীবাদী কলামিষ্ট জব্বার হোসেন

Jabbar.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বাংলাদেশ নয়, দুনিয়াজুড়ে ভয়ঙ্কর এক সন্ত্রাসী আতঙ্ক জঙ্গিবাদ। ধর্মান্ধতাকে পুঁজি করে জঙ্গিরা মানুষকে বিভ্রান্ত করে। তরুণদের ভুল পথে পরিচালিত করে তাদের উদ্দেশ্য কায়েম করে। তরুণরা হয়ে ওঠে আত্নঘাতী, হত্যা করে অন্যকে।

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সুচিন্তা কাজ করছে দীর্ঘদিন। এই সম্মাননা আমার একার নয়, সুচিন্তার সকলের আর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াঁনো সচেতন সকল মানুষের- জঙ্গিবাদবিরোধী প্র্রচারণার জন্য পুরষ্কার পাওয়ার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এমনই বলেন নারীবাদী কলামিষ্ট ও আজসারাবেলা’র সম্পাদক জব্বার হোসেন।

২৭ অক্টোবর শনিবার রাজধানীর হোটেল রেডিসনে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন আয়োজিত, “২১ আগষ্ট: বাংলাদেশের রাজনীতির বর্তমান-ভবিষ্যৎ” শিরোনামে এক বিশেষ আলোচনা সভায় এই পুরষ্কার প্রদান করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

তিনি বলেন, সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এ আরাফাত এই সময়ের একজন মুক্তিযোদ্ধা। যিনি সামাজিক, রাজনৈতিকভাবে দীর্ঘদিন ধরে লড়াই করছেন মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে। আমার এই জঙ্গিবাদবিরোধী স্বীকৃতির সবটুকু তার জন্যই পাওয়া।

সেমিনারে অধ্যাপক মোহাম্মদ এ আরাফাত একটি প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে বিএনপি+বঙ্গবন্ধুর

ঘাতক+রাজাকার+জামায়াত+যুদ্ধাপরাধী+জঙ্গী= একই সূত্রে গাঁথা এটাই সামাজিক রাজনৈতিক দর্শনের সূত্রে প্রমান করেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা রাখেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, মুক্তিযোদ্ধা ও নারী নেত্রী রোকেয়া কবীর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মেসবাহ কামাল ও বিশিষ্ট সাংবাদিক মোজাম্মেল বাবু।

সুচিন্তা ফাউন্ডেশন ঢাকার কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং চট্টগ্রামে মাদ্র্রাসায় জঙ্গিবাদবিরোধী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।
উল্লেখ্য, মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদবিরোধী কার্যক্রমে ভূমিকা রাখার জন্য জববার হোসেন ইতিপূর্বে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও সম্মাননা পান। এটি জঙ্গিবাদবিরোধী কার্যক্রমের স্বীকৃতিস্বরুপ তার দ্বিতীয় সম্মাননা।

অনুষ্ঠানে ঢাকা ও চট্টগ্রাম সুচিন্তার আরো ৯ জনকে সম্মাননা প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।