৫০০০ ইয়াবায় ৬ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড কারবারির

ইমাম খাইর:
কক্সবাজার আদালতে ৫০০০ ইয়াবার মামলায় মো. ফরিদ (৪৫) নামের আসামির ৬ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডসহ ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছে আদালত। অনাদায়ে তাকে আরো ২ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) এ রায় প্রদান করেন যুগ্ম দায়রা জজ ১ম আদালতের বিচারক মাহমুদুল হাসান। এ সময় আসামি পলাতক ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. ফরিদ টেকনাফ পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের মিঠাপানির ছড়া (ফরিদ মিয়ার বাড়ি) এলাকার ইউচুফ আলীর ছেলে।

রায়ের সময় আসামি পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়েছে।

আসামি স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ কিংবা গ্রেফতারের দিন থেকে সাজার মেয়াদ গণনা শুরু হবে বলেও আদেশ দেন বিচারক।

সেই সঙ্গে আসামির নিকট থেকে জব্দকৃত ইয়াবাসমূহ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত ও যথাযথ বিধি অনুসরণপূর্বক ধ্বংস করার জন্য কোর্ট পুলিশ পরিদর্শককে নির্দেশও দিয়েছেন আদালতের বিজ্ঞ বিচারক।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন- সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) এডভোকেট আবদুর রউফ ও জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়াউদ্দিন আহমেদ।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মোহাম্মদ ইসমাইল।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর টেকনাফ টেক্সি স্ট্যান্ড এলাকা থেকে মো. ফরিদকে ৫০০০ ইয়াবাসহ আটক করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মামলা (নং-৪২/৭৯৩) করেছিলেন পরিদর্শক লোকাশীষ চাকমা। প্রায় ৪ বছরের মাথায় এ মামলার রায় হলো।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.