১০ মাসে রেমিট্যান্স পৌনে ২ লাখ কোটি টাকা

ডেস্ক নিউজ:
চলতি ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রথম দশ মাসে (জুলাই-২০ থেকে এপ্রিল-২১) প্রবাসীরা দুই হাজার ৬৭ কোটি ২০ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এটি বাংলাদেশি মুদ্রায় (১ ডলার ৮৫ টাকা ধরে) এক লাখ ৭৫ হাজার ৭১২ কোটি টাকা।

প্রবাসীদের পাঠানো এই রেমিট্যান্স গত পুরো অর্থবছরের চেয়েও বেশি এবং গত অর্থবছরের একবই সময়ের তুলনায় ৫৮০ কোটি ৪০ লাখ ডলার বা ৩৯ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে প্রবাসীরা ১ হাজার ৮২০ কোটি ৩০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন।

এদিকে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের কারণে ২ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ ৪৪.৯৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থমন্ত্রণালয় থেকে সর্বশেষ হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ চিত্র উঠে আসে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, ‘ঈদকে সামনে রেখে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। এছাড়াও গত অর্থবছর থেকে প্রবাসীদের রেমিট্যান্সের ওপর ২ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়ার কারণে রেমিট্যান্স প্রবাহ অব্যাহতভাবে বাড়ছে।’

সূত্র জানায়, চলতি বছরের সদ্য বিদায়ী মার্চ মাসে প্রবাসীরা ২০৬ কোটি ৭০ লাখ মার্কিন মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এটি ২০২০ সালের এপ্রিলের চেয়ে ৯৭ কোটি ৪০ লাখ ডলার বেশি। গত বছরের এপ্রিলে প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাটিয়েছিলেন ১০৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার। এছাড়াও চলতি বছরের মার্চ মাসে ১৯১ কোটি ৬৬ লাখ, ফেব্রুয়ারিতে ১৭৮ কোটি ৫ লাখ ডলার এবং জানুয়ারিতে দেশে ১৯৬ কোটি ২৬ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আসে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, ২০-২১ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-২০ থেকে এপ্রিল-২১) প্রবাসীরা ২ হাজার ৬৭ কোটি ২০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন।

অন্যদিকে, গত অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাঠায় এক হাজার ৪৮৬ কোটি ৮০ লাখ ডলার। ফলে গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে ৩৯ শতাংশ বা ৫৮০ কোটি ৪০ লাখ ডলার।

চলতি অর্থবছরে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স
চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে রেমিট্যান্স প্রথমবারের মতো ২০০ কোটি ডলার ছাড়িয়ে যায়। গত জুলাই মাসে প্রবাসীরা রেকর্ড পরিমাণ ২৬০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠায়, যা এখন পর্যন্ত এক মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স।

এরপর আগস্ট মাসে রেমিট্যান্স কিছুটা কমে হয়, ১৯৬ কোটি ৩০ লাখ ডলার। সেপ্টেম্বরে তা আবার বেড়ে ২১৫ কোটি ১০ লাখ ডলারে উন্নীত হয়। গত অক্টোবরে ২১১ কোটি ২০ লাখ ডলার, নভেম্বরে ২০৭ কোটি ৮০ লাখ ডলার, ডিসেম্বরে রেমিট্যান্স ২০৫ কোটি ৬ লাখ ডলার এসেছে।

নতুন বছরের শুরুতে রেমিট্যান্স প্রবাহ কিছুটা কমতে শুরু করে। ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে প্রবাসীরা ১৯৬ কোটি ২৬ লাখ ডলার, ফেব্রুয়ারিতে ১৭৮ কোটি ৫ লাখ ডলার, মার্চে ১৯১ কোটি ৬৬ লাখ রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। সর্বশেষ এপ্রিলে রেমিট্যান্স আসে ২০৬ কোটি ৬৭ লাখ ডলার।

উল্লেখ্য, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১ কোটির বেশি প্রবাসী রয়েছে। প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স জিডিপিতে অবদান রেখেছে ১২ শতাংশের বেশি। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স পাঠানোর শীর্ষ ১০টি দেশ হলো- সৌদি আরব, যুক্তরাষ্ট্র, আরব আমিরাত, মালয়েশিয়া, ওমান, যুক্তরাজ্য, কুয়েত, কাতার, সিঙ্গাপুর ও ইতালি।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.