স্বল্প সময়ে অজ্ঞাতনামা হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন ও আসামী গ্রেফতার

জাহাঙ্গীর আলম, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

গত ১৭/১০/২০১৭ ইং তারিখ সকাল অনুমান ৭.০০ ঘটিকার সময় কক্সবাজার জেলার কক্সবাজার সদর মডেল থানাধীন ঝিলংজা ইউপিস্থ ০১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম লারপাড়া ইসলামাবাদ জনৈক আবদু শুক্কুরের জমিতে অর্ধনগ্ন ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত সন্বলিত একটি মৃতদেহ পাওয়া যায়। মৃত ব্যক্তির নাম মোঃ দেলোয়ার হোসেন প্রকাশ পুতিক্যা (৩৫), তাহার বাড়ী ও ঘটনাস্থলেরই পার্শ্বে। মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তাহার পরিবার বা এলাকার লোকজনের নিকট হইতে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। বিধায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামী করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায়  মামলা রুজু হয়, মামলা নং- ৪৪, তারিখ- ১৮/১০/২০১৭ ইং, ধারা- ৩০২/৩৪ দঃ বিঃ রুজু হইলে মামলার তদন্তভার পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র)  মোঃ আবুল কালাম, ইনচার্জ সৈকত পুলিশ ফাঁড়ী।

রনজিত বডুয়া, অফিসার ইনচার্জ কক্সবাজার সদর মডেল থানার নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত)  মোঃ কামরুল আজম ও পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন)  মোঃ মাইন উদ্দিন,  তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ আবুল কালাম এর সমন্বয়ে ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় অতি স্বল্প সময়ে ক্লু-বিহীন উক্ত মামলার রহস্য উদঘাটন করে ২৪ ঘন্টার মধ্যে মূল আসামী মৃতের স্ত্রী রুবি আকতার ও রুবি আকতারের সহযোগী মৃতের আপন ছোট ভাই কামাল হোসেনকে গ্রেফতার করেন এবং গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক মৃতের ব্যবহৃত দুইটি মোবাইল, মোটর সাইকেলের চাবি ও তাহার অফিসের চাবি উদ্ধার করেন।

মূল আসামী মৃতের স্ত্রী রুবি আকতার বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে। এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মৃতের বড় ছেলে হৃদয় সুলতান তাহার মাতা কর্তৃক পিতাকে খুন করার বিষয়টি তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বিজ্ঞ আদালতে জবানবন্দি প্রদান করে।

১৭ বৎসরের দাম্পত্য জীবনে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্বন্দের কারণে বিশেষ স্বামীর পরকিয়া প্রেমে আসামী রুবি আকতার ঝগড়া-বিবাদের এক পর্যায়ে উক্ত হত্যাকান্ড ঘটাইয়া মৃতের ভাই কামাল ও মূল আসামীর বোনের ছেলে বাবুর সহায়তায় লাশটি ঘর হইতে বাহির করিয়া পার্শ্ববর্তী জমিতে ফেলিয়া রাখে।

Comments are closed.