‘সেনাপ্রধান হতে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে আপস করেছিলেন খালেদ মোশাররফ’

ওয়ান নিউজঃ সেনাপ্রধান হওয়ার জন্য বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সাথে খালেদ মোশাররফ আপস করেছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. আবু সাঈদ। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে বাঁচাতে, তার হত্যাকাণ্ডকে প্রতিরোধ করতে কিংবা তার আদর্শ প্রতিষ্ঠিত করতে খালেদ মোশাররফ চেষ্টা করেননি। তিনি সেনাপ্রধান হতে চেয়েছিলেন, সেজন্য বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে আপস করেছিলেন।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রেস ক্লাব আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড : দেশীয় ও আন্তর্জাতি চক্রান্ত’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

অধ্যাপক আবু সাঈদ বলেন, সেনাবাহিনীর উচ্চপর্যায়ের সবাই-ই বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডেরে বিষয়ে জানত। খালেদ মোশাররফও সেটি প্রতিরোধ করতে চাননি। তিনিও পরে খুনিদের সুযোগ দিয়েছিলেন, নিজের স্বার্থে।

১৯৭৫ সালে সেনাবাহিনীতে অভ্যুত্থান-পাল্টা অভ্যুত্থানে খালেদ মোশাররফের প্রতি আওয়ামী লীগের অনুরাগ বিভিন্ন সময় দেখা গেছে। খালেদ মোশাররফের মেয়ে মেহজাবিন খালেদ বর্তমান সংসদে আওয়ামী লীগের হয়ে সংরক্ষিত নারী সাংসদ হিসেবে আছেন।

আবু সাঈদ বলেন, খালেদ মোশাররফের সম্পর্কে আমার কথায় কেউ কষ্ট পাবেন না। ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না, আমি সত্যের উপর দাঁড়িয়ে কথাগুলো বললাম।

এসময় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জিয়াউর রহমানেরও তীব্র সমালোচনা করেন।

আদালতের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমরা এখনো বাংলায় রায় লিখিনা। বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে, কিন্তু আদালতে স্বাধীন হয়নি। হয়ে থাকলে আমাদের ভাষা সেখানে স্বাধীন হতো।

আবু সাঈদ বলেন, আদালতে এখনো কলোনিয়াল শাসন চলছে। বাংলায় রায় দিতে না পারাটা আমাদের বিচারপতিদের বড় ধরণের অপরাধ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.