সু চির ৪ বছরের কারাদণ্ড

বিদেশ ডেস্ক
অবৈধভাবে আমদানি করা ওয়াকি-টকি রাখার মামলায় মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে ৪ বছরের সাজা ঘোষণা করেছেন জান্তা আদালত। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (১০ জানুয়ারি) লাইসেন্সবিহীন ওয়াকি-টকি রাখার দায়ে দুই বছর ও করোনাভাইরাস সম্পর্কিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন লঙ্ঘনের মামলায় আরও দুই বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

তবে নিজের বিরুদ্ধে আনীত সবগুলো অভিযোগই অস্বীকার করে আসছেন নোবেলজয়ী সু চি। মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে জানা গেছে, এই শাস্তি তিনি যেখানে বন্দি আছেন সেখানে থেকে ভোগ করবেন। তবে সু চিকে কোথায় রাখা রয়েছে তা স্পষ্ট করা হয়নি।

এর আগে, সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে উসকানি ও কোভিড-১৯ প্রটোকৌল লঙ্ঘনের দায়ে ৪ বছরের সাজা প্রদান করেন আদালত। তবে তার সাজার অর্ধেক কমিয়ে দেন সামরিক সরকার প্রধান মিন অং হ্লাইং।

৭৬ বছর বয়সী সু চির বিরুদ্ধে আরও একাধিক মামলার বিচারকাজ চলছে। সবগুলোর রায় তার বিরুদ্ধে গেলে বাকি জীবন কারাগারে কাটাতে হতে পারে। গত ১ ফেব্রুয়ারি সামিরক বাহিনীর হাতে ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি।

মন্তব্য করুন

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্র রিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোন মন্তব্য বা বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোন ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য বা বক্তব্য সংশোধনের ক্ষমতা রাখেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.