সহজ জয়ে সেমিফাইনালে সাইফ

ক্রিড়া সংবাদ
বাংলাদেশ ফেডারেশন কাপে নবাগত স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে রবিবার (২ জানুয়ারি) সহজ জয়ই পেয়েছে দিয়েগো আন্দ্রেস ক্রুসিয়ানির দল।

গতবারের রানার্সআপ সাইফ স্পোর্টিং শুরু থেকে একের পর এক সুযোগ পেয়েও লক্ষ্যভেদ করতে পারছিল না। তাদের আক্রমণ কখনও নস্যাৎ করেছেন স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘের গোলকিপার সারোয়ার হোসেন, কখনোবা বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে পোস্ট। তবে বিরতির তিন মিনিট আগে সাইফের মুখে হাসি। রহিম উদ্দিনের লক্ষ্যভেদের পর শেষের দিকে মেরাজ হোসেনও ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

ম্যাচ শুরুর সপ্তম মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় সাইফ স্পোর্টিং। এমফন সানডে ও আসরোর গফুরোভের চেষ্টা প্রতিহত হয়। নিজেদের অর্ধ থেকে সতীর্থের পাস পেয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন এমফন সানডে। প্রথম দফায় তার শট রুখে দেন গোলকিপার সারোয়ার জাহান। ফিরতি বলে উজবেকিস্তানের মিডফিল্ডার আসরোর গফুরোভের শট ঠেকিয়ে দলকে রক্ষা করেন গোলকিপার।

১৬ মিনিটে বক্সের ভেতর থেকে এমেরি বাইসেঙ্গের ডান পায়ের ভলি সাইডবারে লেগে ফিরে এলে সাইফ স্পোর্টিংয়ের হতাশা বাড়ে। চার মিনিট পর মেরাজ হোসেনের জোরালো শট ফিরিয়ে দেন গোলকিপার। এরপর এমেকা ওগবাগের চিপ শট গোললাইন থেকে ফেরান সেলিম রেজা। ৩৪ মিনিটে শাকিল হোসেন ও সেলিমের ভুলে বল পেয়ে যান ওগবাগ। কিন্তু গোলকিপারকে একা পেয়েও তাড়াহুড়ো করে বাইরে শট নেন এই নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড। এর পাঁচ মিনিট পর এমফন সানডের জোরালো শট ফিস্ট করে ফেরান গোলকিপার।

অবশেষে ৪২ মিনিটে সফল হয় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার কর্নারে সারোয়ারের গ্লাভস গলে বেরিয়ে যাওয়ার পর গোলমুখে থাকা রহিম উদ্দিন নিখুঁত টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন।

বিরতির পর স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘ সমতায় ফেরার সুযোগ পেয়েছিল। ৫৬ মিনিটে রাসেল আহমেদের প্লেসিং শট ক্রসবারের একটু ওপর দিয়ে গেলে হতাশ হতে হয় তাদের। উল্টো ৭১ মিনিটে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ে দলটি। আসরোর গফুরভের থ্রু থেকে দুই ডিফেন্ডারের ফাঁক গলে বেরিয়ে নিখুঁত শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেরাজ হোসেন। তাতেই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায় সাইফের শেষ চারে ওঠা।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.