‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে ফ্রান্স’

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ ফ্রান্সের পার্লামেন্ট সদস্য বুয়ন তান বলেছেন, ফ্রান্স সরকার সবসময় রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকবে।

বুধবার জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে ফ্রান্সের সংসদীয় প্রতিনিধিদল সাক্ষাৎ করে। এ সময় এ কথা বলেন তিনি। তার নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলের অপর সদস্য মার্টিন লেগুইলি এমপি উপস্থিত ছিলেন।

বুয়ন তান দু’দেশের পারস্পরিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও দৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় ও রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হয়। এ সময় বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তার জন্য প্রতিনিধি দল সরেজমিনে অতি দ্রুত কক্সবাজার পরিদর্শন এবং তাদের জন্য স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন সামগ্রী বিতরণ করবে বলে স্পিকারকে অবহিত করেন বুয়ন তান।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকায় ফ্রান্সের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন স্পিকার। এ সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত মারি-আনিক বুর্দি উপস্থিত ছিলেন।

স্পিকার বলেন, রোহিঙ্গা সংকটের সময়ে সীমান্ত খুলে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্মোচন করেছেন মানবতার নব দুয়ার। স্থাপন করেছেন মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত। জাতিসংঘে সাধারণ পরিষদে রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া পাঁচ দফা প্রস্তাবের ভিত্তিতেই এই সমস্যার স্থায়ী সমাধান সম্ভব বলে তিনি উল্লেখ করেন।

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবর্তনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আরও জোরালো ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারকেই এগিয়ে আসতে হবে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় শুরু থেকেই বাংলাদেশের ভূমিকায় সন্তোষ প্রকাশ করে আসছে।

স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অর্থনৈতিক উন্নয়নের সব সূচকে বাংলাদেশ শক্ত ভিতের ওপর অবস্থান করছে। দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সাত শতাংশ ধারাবাহিকভাবে অর্জিত হচ্ছে, বৈদেশিক রিজার্ভ ১৬শ’ কোটি ডলার ছাড়িয়েছে। রফতানি আয় বেড়েছে ১১ শতাংশ এবং প্রবাসী আয় বেড়েছে ১২ শতাংশ।

তিনি বলেন, জনবান্ধব কর্মসূচি গ্রহণের ফলে দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২৩ শতাংশে নেমে এসেছে। নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হয়েছে। হ্রাস পেয়েছে মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুর হার। মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার।

Comments are closed.