রাঙামাটিতে আওয়ামীলীগ নেতা হত্যা চেষ্টায় মামলার গ্রেফতারকৃত আসামীর জামিন ও রিমান্ড শুনানি

 

 

 

মোঃ ইরফান উল হক (আবির), রাঙ্গামাটিঃ

 

গত ৫ ডিসেম্বর রাঙামাটির বিলাইছড়িতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রাসেল মার্মা এবং রাঙামাটি সদরে জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ঝর্ণা খীসা হত্যা প্রচেষ্টা মামলায় গ্রেফতারকৃত ১৪ আসামীর জামিন ও রিমান্ড শুনানির তারিখ আগামী মঙ্গলবার (১২ডিসেম্বর) ধার্য্য করেছে আদালত।

আজ সকালে রাঙামাটি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী মো: মোহসেন আলীর আদালতে আসামীদের হাজির করা হয়। আসামীদের জামিন ও রিমান্ড আবেদন থাকায় আদালত মঙ্গলবার দিন ধার্য্য করে আসামীদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এসময় আসামীদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন এডভোকেট জুয়েল দেয়ান, এডভোকেট উষা মং ও এডভোকে সুসমিতা চাকমা।

রাঙামাটি জজ আদালতের কোর্ট ইন্সপেক্টর ইসরাফিল মজুমদার জানান, শুক্রবার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামীদের গ্রেফতার করে, ওইদিন আদালতে আনা হলে আদালত আজ রোববার জামিন ও রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য্য করে, কিন্তু আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত না থাকায় আদালত আগামী ১২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য্য করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেয়। বিলাইছড়ির মামলায় পুলিশ উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার পুত্রের জন্য ৪দিনের রিমান্ড, অন্য ৫জনের জন্য ৫দিন করে রিমান্ড এবং রাঙামাটি সদরে মামলায় গ্রেফতারকৃতদের জন্য ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন জানায়।

 

প্রসঙ্গত: গত ৫ডিসেম্বর জুরাছড়িতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুবলীগের সহ-সভাপতি অরবিন্দু চাকমাকে গুলি করে হত্যা করে সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা। একই দিন বিকালে পৃথক ঘটনায় বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মারমাকে শারিরীক নির্যাতন করে সন্ত্রাসীরা। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার রাতে মহিলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ঝর্ণা খীসাকে কুপিয়ে আহত করে দুবৃর্ত্তরা। এসব ঘটনায় জেএসএসকে দায়ী করেছে আওয়ামী লীগ। ঘটনার প্রতিবাদে এবং দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে বৃহস্পতিবার জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে ক্ষমতাসীন দলটি।

Comments are closed.