যশোরের শার্শায় ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণ ধর্ষক শুকুর আলী আটক

ইয়ানূর রহমান : শার্শা উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। সে উপজেলার বড় মান্দারতলা গ্রামের আতিয়ার রহমানের মেয়ে (১০) ও বড় মান্দারতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী।

এ ঘটনার পরপরই এসআই মামুন অভিযান চালিয়ে ধর্ষক শুকুর আলীকে আটক করে।

তাকে উদ্ধার করে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় শার্শা উপজেলার বড় মান্দারতলা গ্রামের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশীর বাড়ী থেকে বাড়ীতে ফেরার সময় প্রতিবেশী মৃত ইব্রাহিম এর লম্পট ছেলে শুকুর আলী শিশুটিকে মুখ চেপে বাগানে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটি চিৎকার করলে লম্পট শুকুর পালিয়ে যায়।

শিশুটি মা মাছুরা খাতুন জানান, মেয়ের চিৎকার শুনে ওকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাঃ এসএম আক্তার ফারুক জানান, শিশুটির অবস্থা খারাপ ও অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণ হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শার্শা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম মসিউর রহমান জানান, ধর্ষক শুকুর আলীকে আটক করা হয়েছে। তার মামলা হয়েছে।

Comments are closed.