যত কথাই বলুন, সুষ্ঠু নির্বাচনে ব্যর্থ সিইসি: রিজভী

ওয়ান নিউজঃ বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) যতোই সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলুন না কেন তিনি কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে (কুসিক) সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছেন এবং নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচন কমিশনের আন্তরিকতার যথেষ্ট ঘাটতি ছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। রাজধানীর নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শুক্রবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে, কুসিক নির্বাচন নিয়ে প্রধান নির্বাচন  কমিশনার বৃহস্পতিবার বলেন বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। তার এ বক্তব্যের  সমালোচনা করে এ্যাডভোকেট রিজভী বলেন, ‘কুসিক নির্বাচনে ককটেল ফাটিয়ে ভোটকেন্দ্রে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম, কেন্দ্র দখল করে ব্যাপক জাল ভোট দেয়া, ব্যালট ছিনতাই করা, ভোটাররা যাতে ভোট কেন্দ্রে না যেতে পারে সেজন্য বাধা সৃষ্টি করা, আগের রাতে এলাকায় এলাকায় দলীয় সন্ত্রাসীদের দিয়ে ভীতি সৃষ্টি করা- এ সবই হলো আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচনের নমুনা। আমি পুনরায় দৃঢ়কন্ঠে বলতে চাই, গতকালের কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচন কমিশনের আন্তরিকতার যথেষ্ট ঘাটতি ছিল। বর্তমান সিইসি যতোই সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলুন না কেন তিনি কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছেন।

রিজভী বলেন, “ সিইসি বলেছেন ‘বিচ্ছিন্ন’ ঘটনা ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। মানে সিইসি আংশিক স্বীকার করেছেন, সম্পূর্ণ স্বীকার করেননি। সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে বাস্তব যে ঘটনা ঘটেছে সেটি স্বীকার করা তার উচিত ছিলো।”

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন যদি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হতো, তাহলে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী অর্ধ লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধান বিজয়ী হতো।

নৌকা মার্কা বুকে নিয়ে ভোটাররা ধানের শীষে ভোট দিয়েছে দলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানের দেওয়া এমন বক্তব্য সম্পর্কে দলের কি অবস্থান সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, স্থানীয় ভোটাররা কৌশল হিসেবে এটা করতেই পারেন। তবে বিষয়টি মেজর কোনো ফ্যাক্টর না। এটা জনগণের গণবিজয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আবুল খায়ের ভূঁইয়া,

বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.