মেয়র মুজিবের নির্দেশে আমাকে গুলি করা হয়েছে: মোনাফ সিকদার

জসিম উদ্দিন, যুগান্তর, কক্সবাজার:
কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও আলোচিত মোনাফ সিকদারকে গুলি করে হত্যাচেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার পিঠে ছোড়া গুলিটি সামনের তলপেট দিয়ে বের হয়ে তারেক নামের এক পথচারী গুলিবিদ্ধ হন। তার পায়ে গুলি লাগে।

বুধবার রাত ৯টার দিকে শহরের কলাতলী সুগন্ধা পয়েন্ট এলাকায় শুঁটকি মার্কেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবৃদ্ধ মোনাফ সিকদার বর্তমানে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয় চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে মোনাফ এখনো আশঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন।

সিসিটিভি ফুটেজ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাত ৯টায় দিকে শহরের সুগন্ধা পয়েন্টে এলাকায় প্রধান সড়কের পাশের একটি শুঁটকি মার্কেটের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন মোনাফ সিকদার। এ সময় বাইক থেকে নেমে একজন দুর্বৃত্ত অতর্কিত ও মাত্র কয়েক গজ দূর থেকে মোনাফের পিঠে গুলি করে পালিয়ে যায়। পিঠে লাগা গুলিটি তার সামনের তলপেট ছেদ করে বের হয়ে তারেক নামের এক পথচারীর পায়ে লাগে।

এদিকে, মোনাফ সিকদার গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর জ্ঞান হারানোর আগে দাবি করেছেন- কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের নির্দেশে তাকে গুলি করা হয়েছে।

তার জবানবন্দির একটি অডিও বৃহস্পতিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়। ভিডিওটি মুহূর্তেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

জবানবন্দিতে মোনাফ সিকদার বলেন, আমাকে কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের নির্দেশে গুলি করা হয়েছে। দুর্বৃত্তরা গুলি করার সময় আমাকে বলছে- মুজিব চেয়ারম্যানের সঙ্গে লাগছো? এ বলে পেছন থেকে গুলি করে তারা পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে জানতে মুজিবুর রহমানের সঙ্গে যোগযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

তবে মেয়রের ব্যক্তিগত সচিব এবি সিদ্দিক খোকন বলেন, অভিযোগের বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। মেয়র বুধবার থেকে ঢাকায় অবস্থান করছেন। মেয়র আসলে এ বিষয়ে কথা বলবেন।

এদিকে মোনাফ সিকদারকে গুলির ঘটনায় কক্সবাজার শহরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বুধবার রাত থেকে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা দফায় দফায় শহরের অলি-গলিতে মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অব্যাহত রেখেছেন। এসব মিছিল সমাবেশ থেকে হত্যাচেষ্টার সঙ্গে জড়িত যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়েছে।

কক্সবাজার মডেল থানার ওসি তদন্ত বিপুল চন্দ্র দে বলেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোনাফকে যারা গুলি করেছে সেসব দুর্বৃত্তকে শনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তবে এখনো পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়নি।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.