মুজিব বর্ষে ঘর চায় হতদরিদ্র ছালেহা

এম বশির উল্লাহ, মহেশখালীঃ
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি প্রতিটি ঘরহীন মানুষকে ঘর তৈরি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষে সরকারের একটি বড় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশের ৮ লাখ ৮২ হাজার ৩৩টি ঘরহীন পরিবারকে আধপাকা টিন-শেড ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার পর আবারও আগামী জুন মাসে আরো ৫৩ হাজার ভুমিহীন মানুষকে বাড়ি ঘর করে দিবে বলে ঘোষণা দিয়েছে সরকার।
এই ঘোষণার পর আশায় বুক বেধেছে মহেশখালীর এক দরিদ্র গৃববধু ছালেহা বেগম।
তিনি বলেন, আমি কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর প্রত্যন্ত এলাকা ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের তেলি পাড়া গ্রামের একজন গৃহবধু।
গত ১০ বছর ধরে ঝুপড়ি ঘরে অতিব কষ্টে ৩ টি মেয়ে সন্তান নিয়ে খুব কষ্টে দিন যাপন করছি।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার একটি বাড়ির জন্য অনেকবার জনপ্রতিনিধিদেরকে বলেছি। কোন কাজ হয়নি।
আমার স্বামী একজন দিন মজুর শ্রমিক। গ্রামের সড়কে চানাবুট বিক্রি করে। কোন মতে সংসার চলছে। বাড়ি করার মতো হাতে টাকা পয়সা নাই।
ছালেহা বলেন, প্রতি র্বষা মৌসুমে আমাদের কষ্ট দেখার কেউ থাকেনা। যে জমিতে থাকি সেটাও খাস।
একটি ঘরের জন্য আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাই। আমি হতভাগা। অসহায়। সরকারী একটি বাড়ি পাওয়ার যোগ্য নই কি আমি?
গৃহবধু ছালেহা আরো বলেন, আমি বাড়ি পাওয়ার যোগ্য হলে আমাকে একটি সরকারী বাড়ি করে দিলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসক, মাননীয় সংসদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সকলের কাছে চিরকৃতজ্ঞ থাকবো।
তার মিনতি, মুজিব বর্ষে আমি একটি বাড়ি চাই।

মন্তব্য করুন

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্র রিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোন মন্তব্য বা বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোন ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য বা বক্তব্য সংশোধনের ক্ষমতা রাখেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.