ব্যাংকের কর্মীদের পরিবহন সুবিধা দেওয়ার নির্দেশ

ডেস্ক নিউজ:
লকডাউনের মধ্যেও সীমিত পরিসরে চলছে ব্যাংকিং কার্যক্রম। করোনা পরিস্থিতিতে নিজস্ব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যাতায়াতের জন‌্য পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করতে ব‌্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব‌্যাংক। যদি কোনো ব্যাংক কোনো কারণে তা নিশ্চিত করতে না পারে, তাহলে যৌক্তিক হারে যাতায়াত ভাতা দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এ নির্দেশনা সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারের আরোপিত বিধিনিষেধের মধ্যে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার সময়সীমা প্রাথমিকভাবে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল নির্ধারণ এবং পরবর্তীতে ২১ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। ব্যাংকে আসা-যাওয়ার জন্য গণপরিবহনের অপ্রতুলতার কারণে ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অধিক ব্যয় ও ভোগান্তির সম্মুখিন হচ্ছেন।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াত সমস্যা নিরসনে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনায় নিজস্ব পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। কোনো কারণে যাতায়াত সুবিধা নিশ্চিত করতে অসমর্থ/ব্যর্থ হলে ব্যাংকে আসা-যাওয়ার জন্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যৌক্তিক হারে যাতায়াত ভাতা দিতে হবে। এ সংক্রান্ত ব্যয়ের বিষয়ে পরবর্তীতে ব্যাংকের পরিচালক পর্ষদের কার্যোত্তর অনুমোদন নিতে হবে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.