বিয়ে নয়, নিখিলের সঙ্গে ‘লিভ ইন’-এ ছিলাম: নুসরাত

ডেস্ক নিউজ: গত কয়েক মাস ধরেই পেজ থ্রি-র পাতায় মুখোরোচক খবরে বারবার উঠে এসেছে টলিউড তারকা নুসরাত জাহানের স্বামী নিখিল জৈন-এর নাম। নুসরাতের সঙ্গে বিচ্ছেদ নিয়ে বারেবারে চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে নিখিল জৈন। পেশায় তিনি বস্ত্র ব্যবসায়ী। নামী এক প্রতিষ্ঠানের সিইও, নিজস্ব ব্র্যান্ডও রয়েছে তার। ভালোবেসেই একে অপরকে বিয়ে করেছিলেন নুসরাত আর নিখিল। তাদের সম্পর্ক নিয়েও তো জল্পনা কম হয়নি। দু-বছর আগের ২৮ মে নিখিলের সঙ্গে প্রেম সম্পর্কে সিলমোহর দিয়েছিলেন নুসরাত। তুরস্কের সাজানো শহরে রাজকীয় সেই বিয়ে উঠে এসেছিল সংবাদ শিরোনামে। তবে বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ভালোবাসাও যেন গায়েব। নিখিলকে সরিয়ে দিয়ে নতুন প্রেমলীলায় মজে উঠলেন নুসরাত জাহান। টলিউড অভিনেতা যশের সঙ্গে নুসরাতের সম্পর্কটা এখন অনেকটা খোলামেলাই বলা যায়। চলতি সপ্তাহের শুরুতেই যশকে নিজের প্রেমিক হিসাবে স্বীকৃতিও দিয়ে দিয়েছেন নুসরাত। হামেশাই একসঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন তারা।

বিয়ে নয়, নিখিলের সঙ্গে ‘লিভ ইন’-এ ছিলাম: নুসরাত

এরইমধ্যে গত তিনদিন ধরে ভেসে বেড়াচ্ছে নুসরাত জাহানের মা হওয়ার খবর। যা সত্যি নাকি গুঞ্জন- নিশ্চিত হওয়া যায়নি এখনও। নুসরাতের অনাগত সন্তানের পিতৃ পরিচয় নিয়েও বিতর্ক তুঙ্গে। নিখিল আগেই স্পষ্ট জানিয়েছেন, এই সন্তানের বাবা তিনি নন। এর মাঝেই চর্চা শুরু হয়েছে মা হওয়ার খবর জেনেই নাকি নুসরাতের বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা ঠুকেছেন নিখিল। তবে সেই জল্পনা উড়িয়ে নিখিল স্পষ্ট করেছেন, মা হওয়ার খবরে নয়, নুসরাতের নামে অনেক আগেই তিনি মামলা দায়ের করে রেখেছেন। এতদিন এসব নিয়ে চুপচাপ থাকলেও বুধবার (৯ জুন) নিখিলের সঙ্গে বিচ্ছেদের চর্চা নিয়ে অবেশেষে নীরবতা ভাঙলেন নুসরাত। বললেন, ‘তুরস্কের বিবাহ আইন অনুসারে ওই বিয়েটা অবৈধ। তার উপর এটা যেহেতু হিন্দু-মুসলিম বিয়ে সেক্ষেত্রে বিশেষ বিবাহ আইন অনুসারে এই বিয়েতে স্বীকৃতি দরকার। সেটা হয়নি। ফলে এটা বিয়েই নয়।’

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে দেওয়া বিবৃতিতে নুসরাত আরও জানান, ‘আইনের চোখে এটা বিয়েই নয়, বরং একটা রিলেশনশিপ বা বলা যায় লিভ ইন রিলেশনশিপ। তাই ডিভোর্সের প্রশ্নটাই উঠে না। আমারা বহুদিন আগেই আলাদা হয়ে গিয়েছি। তবে আমি এই নিয়ে কিছু বলতে চাইনি। কারণ আমার ব্যক্তিগত জীবনটা আমি ব্যক্তিগতই রাখতে চেয়েছিলাম। তাই আমি কী করছি, সেটা ওই বিচ্ছেদের উপর ভিত্তি করে নির্ভরশীল নয়।আমাকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমের বা অন্য যে কারুর প্রশ্ন তোলাটা সাজে না। এই বিয়েটা আইন সম্মত নয়, বৈধ এবং কার্যকর নয়।’

বিয়ে নয়, নিখিলের সঙ্গে ‘লিভ ইন’-এ ছিলাম: নুসরাত

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৯ ও ২০ জুন তুরস্কের বোদরুমে দুটি রীতি মেনে বিয়ের পর্ব সেরেছিলেন নুসরাত-নিখিল। জুলাইয়ের ২ তারিখ কলকাতায় ফিরে বিলাসবহুল এক হোটেলে বসেছিল এই জুটির গ্র্যান্ড রিসেপশন। যেখানে হাজির ছিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর কোনও সরকারি অনুষ্ঠান থেকে প্রাইভেট পার্টি, সব জায়গায় একসঙ্গে দেখা মিলেছে এই জুটির।

এদিকে নুসরাতের বিরুদ্ধে মামলা করা নিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিখিল জৈন জানান, ‘যে দিন জানলাম, নুসরাত আমার সঙ্গে থাকতে চায় না, অন্য কারও সঙ্গে থাকতে চায়, সে দিনই দেওয়ানি মামলা দায়ের করেছি আমি। নুসরাতের মা হওয়ার পরে এই সিদ্ধান্ত নিইনি আমি।’ নিখিল সংবাদমাধ্যমকে স্পষ্ট জানান, ছয় মাস ধরে তিনি আলাদা নুসরাতের থেকে।

জানা গিয়েছে, মার্চ মাসে দাখিল করা নিখিলের সেই মামলার পরবর্তী শুনানি ২০ জুলাই। যেহেতু নুসরাত-নিখিলের ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন হয়নি। সেই কারণেই অ্যানালমেন্ট করেই নুসরাতের সঙ্গে আলাদা হতে চান নিখিল। তবে নুসরাতের এই বিস্ফোরক বিবৃতির পর নিখিল কী বলেন, এখন নজর সেদিকেই!

মন্তব্য করুন

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্র রিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোন মন্তব্য বা বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোন ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য বা বক্তব্য সংশোধনের ক্ষমতা রাখেন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.