বিএনপি মানুষকে ক্ষুধার্ত রেখে নিজেরা হৃষ্টপুষ্ট হয়: প্রধানমন্ত্রী

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি সারাজীবন দেশের মানুষকে ক্ষুধার্ত রেখে বিদেশ থেকে ভিক্ষা আনতে চায়। আর সেই ভিক্ষা এনে দেশের মানুষকে উপোস রেখে নিজেরা খেয়ে হৃষ্টপুষ্ট হয়, এটাই তাদের নীতি।
সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাণিজ্যমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ যখন দেশের মানুষকে উন্নত করতে, মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করতে এবং দেশের মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করতে কাজ করে যাচ্ছে। তখন বিএনপি দেশকে পেছনের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে।
১৯৯৮ সালে সংসদের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বলেছিলাম বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হবো। ১৯৯৮ সালে বন্যা হলো, বলা হয়েছিল দুই কোটি মানুষ না খেয়ে মারা যাবে। আল্লাহর রহমতে একটা মানুষও না খেয়ে মারা যায়নি। আমরা এমন পদক্ষেপ নিয়েছিলাম বলেই একটা মানুষও না খেয়ে মরেনি।
তিনি বলেন, এরপর উদ্যোগ নিলাম বাংলাদেশে খাদ্য উৎপাদন বাড়িয়ে কিভাবে খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হতে পারি। আমাদের প্রচেষ্টায় ওই বছরই বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হলো। সংসদে এটা নিয়ে বিতর্ক হলো। সংসদে আমরা যখন দাবি করলাম, বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন। তখন বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ও তার সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান বললেন, দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হওয়া ভালো না।
বিএনপি বলেছিল, দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হলে বিদেশ থেকে সাহায্য পাওয়া যাবে না। অর্থাৎ ভিক্ষার চাল পাওয়া যাবে না। আমার প্রশ্ন ছিল, আমরা কি সারাজীবন ভিক্ষুক হয়ে থাকবো? মানুষের কাছে হাত পেতে চলবো? আমরাতো সেজন্য দেশ স্বাধীন করি নাই। আমাদের স্বাধীনতার লক্ষ্যই হলো দেশ মর্যাদা নিয়ে চলবে। আমরা পারবো না কেন।

Comments are closed.