পুনরায় রোহিঙ্গাদের পাশে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিঃ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
প্রথম পর্যায় অত্যন্ত সফল ভাবে সমপন্ন করে দ্বিতীয়বারের মত পুনরায় রোহিঙ্গাদের পাশে দাড়াচ্ছে শহরের একমাত্র উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।
আগামী ১৯শে অক্টোবর রোজ বৃহস্পতিবার নির্যাতিত অসহায় রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ স্বরুপ শিশু খাদ্য, শিক্ষা সরন্জাম, ঔষধপত্র বিতরণ এবং চিকিৎসাসেবা প্রদানের পরিকল্পনা ও উদ্যোগ গ্রহণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
আগ্রহী শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণের জন্য অনুরোধ করেছে সংশ্লিষ্ট উদ্যোগকারীরা।
এ বিষয়ে আগ্রহীরা স্ব স্ব অবস্থান থেকে খাবার স্যালাইন ও নগদ অর্থ দিয়ে সহায়তা করা সম্ভব বলে জানিয়েছে টিমের এক সমাজকর্মী।
সংঘঠনের অনেকে জানান, মানবসেবাই প্রকৃত ধর্ম। মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। লাখ লাখ নির্যাতিত রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীরা আবারও স্রোতের মত নিজেদের জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।
সসরেজমিনে দেখা যাচ্ছে প্রখর রোদ, হঠাৎ বৃষ্টি, প্রচন্ড দুর্ভোগ, অসহনীয় কষ্ট-দুর্দশা এবং অজানা নানা আতংকের মধ্য দিয়ে দিন কাটাচ্ছে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গারা।
এ মানুষ গুলোর মাথার উপরে নেই চালা, পরনের জন্য নেই বস্ত্র আর পেটে নেই দু’মুঠো অন্ন। তারপরও আবার নতুন করে পানির ঢলের মত পুনরায় রোহিঙ্গাদের আগমন ঘটছে প্রতিদিন।
কিছুই করতে না পারলেও আমরা যার যার অবস্থান থেকে তাদের পাশে মানবিকতায় হাত প্রসারিত তো করতে পারি বলে মন্তব্য করেছেন বোর্ডের সদস্য ও সমসাময়িক কলামিস্ট মাহবুবা শিউলী।
কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে বিপন্ন নির্যাতিত জাতিগোষ্ঠী রোহিঙ্গাদের পাশে সকল আর্থ সামাজিক প্রতিষ্ঠানের এগিয়ে আসার ও আহবান জানান তিনি।
সাহায্য প্রদানকারী ও আগ্রহীরা যোগাযোগ করতে পারেন কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটির বোর্ড সদস্য ও প্রতিষ্ঠানের সাথে।

তথ্যসুত্রে জানা যায়,আগামী বৃহস্পতিবার নিপীড়িত, নির্যাতিত ও অসহায় রোহিঙ্গাদের সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ১ দিনের ক্যাম্পে ২০ জনের একটি মেডিকেল টিম গঠন করেছে সংঘঠনটি।
অন্যদিকে ডাক্তার,নার্স ও সেবাপ্রদানকারী সকলকে এ মহান কাজে সেচ্ছাসেবী হিসেবে যোগ দেওয়ার জন্য আন্তরিকভাবে স্বাগত জানিয়েছে বোর্ড সদস্য শিউলী।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.