তুরাগে ভেসে উঠলো মৃত ডলফিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
সাভারের তুরাগ নদে ভেসে উঠেছে একটি মৃত ডলফিন। যার ওজন ৩ মণ লম্বায় প্রায় ৫ ফুট।

রোববার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে স্থানীয় জেলেরা তুরাগ নদের আশুলিয়া বাজার সংলগ্ন ঘাটে মৃত ডলফিনটি দেখতে পায়ে, সন্ধ্যায় জাল দিয়ে তীরে উঠান তারা।

স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, শিল্প কারখানার রাসায়নিক মিশ্রিত পানি মিশে নদীর পানি দূষিত হয় ডলফিনটি মারা গেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুস সাত্তার বলেন,আগে কখনও এই নদীতে ডলফিন দেখিনি আমরা। আজ বিকেলে তুরাগের বাজার ঘাটে মাছ ধরতে যায় স্থানীয় কিছু জেলে।

এসময় ডলফিনটি মৃত অবস্থায় ভাসমান দেখতে পায় তারা, পরে জাল দিয়ে ডলফিনটি তীরে তুলে আনা হয়। ডলফিনটির মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিলো। মূলত নদীর পানিতে কারখানার নির্গত রাসায়নিক অতিমাত্রায় মিশ্রিত থাকায় ডলফিনটি মারা গেছে। তাই মৃত ডলফিনটিকে দেখতে তীরে অনেক মানুষ ভীড় করেছিল।

সাভার উপজেলা সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম সরকার বলেন, এটা গ্যাংগিজ ডলফিন বা বাংলায় হলো গাঙ্গের শুশুক। এক সময় পদ্মা ও যমুনা নদীতে এর অভয়াশ্রম ছিলো । মূলত এরা স্তন্যপায়ী জাতীয় প্রাণি। তবে এই অঞ্চলে গত ১০-১৫ বছরের মধ্যে এরকমের শুশুক দেখা যায়নি বা শোনা যায়নি। হয়ত কোন ভাবে বুড়িগঙ্গা থেকে এসেছিলো।

মারা যাওয়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ঢাকার আশপাশের পরিবেশ প্রতিবেশটা দূষণের কারণে জলজ জীববৈচিত্রের কারণে মারাত্মক হুমকির সম্মুখীন। সেই সাথে এই প্রাণির যে খাদ্যাভাস সেটা তুরাগ নদীতে এখান নেই। বিষাক্ততা, খাদ্য স্বল্পতা, অথবা কোন রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যেতে পারে।

মৃত্যুর কারণটা নিশ্চিত ও গবেষণার জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের গবেষকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। এবং স্থানীয়দের অনুরোধ করছি পরবর্তীতে নদীতে এ ধরনের প্রাণী দেখতে পেলে যেন আমাদেরকে জানানো হয়।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.