ট্যাবলেট সোহেল বাহিনীর পাল্টা অ্যাকশন শুরু

ইয়ানুর রহমান : ‘সন্ত্রাসী’ সোহেল ওরফে ট্যাবলেট সোহেলকে গুলি করে হত্যাচেষ্টার পাল্টা অ্যাকশন হয়েছে।
তার অনুসারীরা আজ শনিবার দুপুরে ষষ্ঠিতলাপাড়ায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী শিশির ও শুভর বাড়িতে হামলা করে। এ সময় কয়েকটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। মারপিটের শিকার হন শিশিরের মা।
এর আগে বেলা ১১টার দিকে একদল সন্ত্রাসী ট্যাবলেট সোহেলকে খুনের উদ্দেশ্যে গুলি ছোড়ে। লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি টিপু সুলতান নামে এক দোকানির বুকে বিদ্ধ হয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান টিপু।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা দেড়টার দিকে ২০-২৫ জন সন্ত্রাসী ষষ্ঠিতলাপাড়ায় সন্ত্রাসী শিশিরের বাড়িতে হামলা চালায়। তারা বাড়িটি তছনছ করে। মারপিট করে শিশিরের মা চায়না ঘোষকে। সন্ত্রাসীরা এ সময় পরপর তিনটি বোমা ফাটিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে।
বোমার বিকট শব্দে পুরো এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। মানুষ দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করেন।
শিশিরের মা চায়না ঘোষ বলেন, ‘হামলার নেতৃত্বে ছিল মানিক নামে এক সন্ত্রাসী। এসময় তারা আমাকে মারপিট করে এবং বাড়ি ভাঙে।’
ঘটনার পরপরই কোতয়ালী থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তারা সেখান থেকে বোমার কিছু আলামত উদ্ধার করে।
থানার এসআই নজরুল ইসলাম বলেন, বোমাবাজির ঘটনা শুনে পুলিশ তখনই সেখানে যায়। ঘটনাস্থল থেকে বিস্ফোরিত বোমার অংশবিশেষ ও জালের কাঠি উদ্ধার করা হয়েছে।
এর আগে একই সন্ত্রাসীরা ষষ্ঠিতলাপাড়ার আরেক সন্ত্রাসী শুভর বাড়িতে হামলা চালায়। শুভকে না পেয়ে তারা বাড়িঘর ভাংচুর করে ফিরে যায়। এ সময় সেখানে পুলিশ অবস্থান করছিল বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
প্রসঙ্গত, আজ বেলা ১১টার দিকে একদল সন্ত্রাসী শহরের টিবি ক্লিনিক এলাকায় একটি দোকানে বসে থাকা ‘সন্ত্রাসী’ সোহেল ওরফে ট্যাবলেট সোহেলকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে দোকানি টিপুর বুকে বিদ্ধ হয়। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। তার দেড় বছর বয়সী একটি সন্তান রয়েছে বলে পরিবারটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
প্রাণে বেঁচে যাওয়া সোহেলের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক কাজে জড়িত থাকার অনেক অভিযোগ রয়েছে। তার ওপর হামলার পাল্টা হিসেবে ষষ্ঠিতলাপাড়ায় প্রতিপক্ষের দুটি বাড়িতে হানা দেওয়া হয়েছে বলে এলাকাবাসী জানান ৷

Comments are closed.