টেকনাফে ৯ টন সামুদ্রিক শামুক-ঝিনুক জব্দ

ওয়ান নিউজঃ সমুদ্রসৈকত থেকে নিষেধাজ্ঞা অম্যান্য করে শামুক-ঝিনুক উত্তোলনের পর পাচারের উদ্দেশ্যে মজুদ রাখা ৯টন সামুদ্রিক শামুক-ঝিনুক জব্দ করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি পরিবেশ অধিদপ্তর।
শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার উপকূলীয় বাহারছড়া ইউনিয়নের কচ্ছপিয়া সমুদ্রসৈকত এলাকা থেকে শামুক-ঝিনুক জব্দ করা হয়েছে।
পরিবেশ অধিদপ্তর, কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক সর্দার শরীফুল ইসলাম বলেন, উপজেলার উপকূলীয় বাহারছড়া ইউনিয়নের কচ্ছপিয়া এলাকায় কিছু ব্যক্তি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দিন-দুপুরে সমুদ্রসৈকত থেকে শামুক-ঝিনুক আহরণ করছে এমন সংবাদ পায়, সেই সূত্র ধরে, (আমার) নেতৃত্বে পরিবেশ অধিদপ্তরের একটি দল গতকাল শুক্রবার সকালে ওই এলাকায় অভিযানের যায়। এসময় তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে কয়েকজন শামুক-ঝিনুক সংগ্রহকারি পালিয়ে যায়। পরে তাদের ফেলে যাওয়া মজুদ রাখা ৩০বস্তা শামুক-ঝিনুক উদ্ধার করা হয়। যার ওজন ৯টন। জব্দ করা শামুক-ঝিনুকগুলো পরিবেশ অধিদপ্তরের কার্যালয়ে রাখা হচেছ।
সর্দার শরীফুল ইসলাম বলেন, ইসিএ এলাকায় সামুদ্রিক শামুক-ঝিনুক আহরণ এবং বিক্রয় স¤পুর্ণ নিষিদ্ধ থাকলে স্থানীয় একটি চক্র দীর্ঘ দিন ধরে সমুদ্রসৈকত থেকে সংগ্রহ করে পরিবেশের ক্ষতিসাধন আসছিল। এ ঘটনায় তারা জড়িত থাকায় মোহাম্মদ ইলিয়াছ, মোহাম্মদ রফিক, মোহাম্মদ রুবেল ও মোহাম্মদ জোবাইরকে আসামি করে পরিবেশ আইনে টেকনাফ মডেল থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।
টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) শেখ আশরাফুজ্জামান বলেন, মোহাম্মদ ইলিয়াছ, মোহাম্মদ রফিক, মোহাম্মদ রুবেল ও মোহাম্মদ জোবাইরকে পলাতক আসামি করে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.