জাস্ট ‘লাভ স্প্রে’ নারীরা আকৃষ্ট হবেই!

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ পুরুষদের পারফিউম বা সুগন্ধী নিয়ে নতুন এক গবেষণা চালিয়েছেন জার্মান গবেষকরা। তারা এমন এক সুগন্ধী বের করেছেন যা পুরষরা মাখলে নারীরা মুহূর্তের মধ্যে তার প্রতি আকৃষ্ট হবেন। সুগন্ধীর ঘ্রাণ নাকে গেলেই ছেলেদের প্রেমে পড়ে যাবেন মেয়েরা।

কাঙ্ক্ষিত নারীকে কাছে পাওয়ার জন্য পুরুষদের হাজারো কসরৎ করার দিন এখন শেষ। এ বার থেকে সামান্য একটা স্প্রে গায়ে মেখেই পুরুষরা যে কোনও নারীকে বশ করতে পারবেন। অন্তত এমনটাই দাবি জার্মানির বন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের। তারা জানিয়েছেন, এই সুগন্ধী একজন পুরুষ মাখলে, সেই গন্ধ যে সমস্ত নারীর নাকে পৌঁছবে, তারা ওই পুরুষের প্রতি মানসিক ও শারীরিক আকর্ষণ অনুভব করবেন।

বন ইউনিভার্সিটির গবেষকদের আবিষ্কার করা সুগন্ধির নাম ‘লাভ স্প্রে’। এটি যে পুরুষ গায়ে মাখবেন, তার প্রতি শারীরিক ও মানসিক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়বেন আশেপাশে থাকা নারীরা। তাহলে প্রশ্ন কী আছে সেই স্পেতে? এমন প্রশ্নের উত্তরে বিজ্ঞানীরা বলছেন, বিশেষ সুগন্ধীটি তৈরি করা হয়েছে অক্সিটোসিন হরমোনের সিন্থেটিক নির্যাস দিয়ে। এই অক্সিটোসিন হরমোনই মানবশরীরে প্রেম ও স্পর্শ করার অনুভূতি জন্ম দেয়। ফলে বিজ্ঞানীরা এই হরমোনকে কাজে লাগিয়েই তৈরি করেছেন একটি বিশেষ কৃত্রিম রাসায়নিক, যার নাম দেওয়া হয়েছে সিনটোসিন। এই রাসায়নিকই নাকি পুরুষদের প্রতি মহিলাদের আকর্ষণ করার ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করে।

এই সুগন্ধীর সাফল্যের সম্ভাবনা কতখানি? অর্থাৎ যে কোনও পুরুষ শুধুমাত্র এই লাভ স্প্রে-র সাহায্যে কি জয় করতে পারবেন যে কোনও নারীর মন? গবেষকরা বলছেন, ঠিক তা নয়। তবে এই স্প্রে-র সুগন্ধ কোনও নারীর নাকে পৌঁছলে, যে পুরুষের শরীর থেকে এই সুগন্ধ আসছে, তাঁর প্রতি কিছুটা হলেও দুর্বলতা অনুভব করবেন তিনি।

গবেষকরা জানাচ্ছেন, লাভ স্প্রে-র কার্যকারিতা পরীক্ষা করার জন্য ২০ থেকে ২৯ বছর বয়সি ৪৬ জন নারীকে নিয়ে একটি সমীক্ষা চালানো হয়। প্রথমে ১০ জন পুরুষকে ওই নারীদের সঙ্গে আলাপ করানো হয়। তার পর ওই সমস্ত পুরুষদের কাকে কতটা আকর্ষণীয় মনে হচ্ছে নারীদের, তা ১ থেকে ১০-এর মধ্যে নম্বর দিয়ে জানাতে বলা হয়। এর পর লাভ স্প্রে মাখা অবস্থায় ওই পুরুষদেরই সঙ্গে পুনরায় কথাবার্তা বলেন নারীরা। তার পর আবার নম্বরের মাধ্যমে ওই পুরুষদের সম্পর্কে নারীদের আকর্ষণের মাত্রা জানতে চাওয়া হলে দেখা যায়, গড়ে প্রতি পুরুষকে ১৫ শতাংশ বেশি আকর্ষণীয় মনে করছেন নারীরা।

শুধু কি পুরুষদের জন্যই কাজ করবে এই স্প্রে, নাকি নারীরাও লাভ স্প্রে-র সাহায্যে জিতে নিতে পারবেন নিজের প্রিয় পুরুষের হৃদয়? বন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের বক্তব্য, প্রাথমিক ভাবে পুরুষদের ব্যবহারের কথা ভেবেই বানানো হয়েছে এই স্প্রে। ভবিষ্যতে নারীদের ব্যবহার্য সংস্করণও প্রকাশ পেতে পারে স্প্রে-টির।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.