চেয়ারম্যান ফেরদাউস আর নেই

ওয়ান নিউজঃ রামু উপজেলা বি,এন,পির সভাপতি এস,এম, ফেরদৌস তিনি জীবনের শুরু থেকেই ছাত্রদলের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হয়ে বিএনপি রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। চট্রগ্রাম বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে( বাংলায়) বি,এ,অনার্স এম,এ পাস এস.এম ফেরদৌস ১৯৯২ সালে বৃহত্তর খুনিয়াপালংইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।
তাঁর বাবা মরহুম মোঃ হাসান মাস্টার ও একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন।
বিএনপির রাজনীতিতে তিনি প্রথমে খুনিয়াপালং ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি, রামু উপজেলা বিএনপির ২ বার সাধারন সম্পাদক, পরে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক হন।
সর্বশেষ মৃত্যুর আগ পর্যন্ত উপজেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন।
আজ সকাল ৭টার দিকে চট্রগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন বিএনপির এই প্রবীন ও ত্যাগী নেতা।
মৃত্যুকালীন তাঁর বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। আজ ১০/১২/২০১৭ইং আছরের নামাজের পর পূর্ব ধেছুয়া পালং, মরিচ্যা চেকপোষ্ট সংলগ্ন মাদ্রাসা মাঠে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্টিত হবে।
উল্লেখ্য গত ৯ ডিসেম্বর সন্ধায় তিনি কক্সবাজার শহরে মোটর সাইকেল- টমটমের মুখোমুখী সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন। ব্যক্তি গত জীবনে তাঁর ৩ সন্তান রয়েছে তারা হলেন রাজা, রিয়াদ,সাঈম, বি,এন,পির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির মৎসবিষয়ক সম্পাদক সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল বলেন এস,এম,ফেরদৌস একজন ভদ্র, নম্র, সহজ -সরল ভালো মানুষ ছিলেন, দুর্দিনে দলের হাল ধরে দলকে সুসংগঠিত করেছিলেন, তাঁর মৃত্যুতে দল একজন আদর্শ বান ও নিবেদিত ব্যক্তিকে হারালো,তিনি মরহুমের আত্বার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানান।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.